চেতনানাশক ওষুধ খাইয়ে একাধিক ছাত্রীকে অচেতন করে ধর্ষণচেষ্টা!

গোপালগঞ্জের কোটালীপাড়া উপজেলার রামশীল কলেজের সংগীত বিভাগের শিক্ষক রজত লাল হালদারের বিরুদ্ধে ছাত্রীদের খাবারের সঙ্গে নেশাজাতীয় দ্রব্য খাইয়ে অচেতন করে ধর্ষণচেষ্টার অভিযোগ উঠেছে।

গত ৫ জুলাই আগৈলঝাড়া উপজেলার আহুতি বাট্টা গ্রামের সুধীর রঞ্জন হালদারের ছেলে একই বাড়ির একাধিক ছাত্রীকে অচেতন করে ধর্ষণচেষ্টার অভিযোগে স্থানীয়রা তাকে এক মাসের জন্য সমাজ থেকে আলাদা করে একঘরে করে রেখেছে।

স্থানীয়রা জানান, রজত লাল হালদারের বিরুদ্ধে বরিশাল আদালতে একটি ধর্ষণ মামলা চলছে। এর মধ্যেই আবার তার বিরুদ্ধে ছাত্রীদের ধর্ষণ চেষ্টার অভিযোগ উঠেছে।

রামশীল কলেজের অধ্যক্ষ জয়দেব বালা বলেন, বর্তমানে কলেজ বন্ধ রয়েছে। কলেজ খুললে রজত লালের বিষয়গুলো তদন্ত করা হবে। তার বিরুদ্ধে বিধি মোতাবেক ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

ওই ছাত্রীদের পরিবার থেকে বলা হয়েছে, বরিশালের আগৈলঝাড়া উপজেলার আহুতি বাট্টা গ্রামের সুধীর রঞ্জন হালদারের ছেলে কোটালীপাড়া রামশীল কলেজের সংগীত শিক্ষক রজত লাল হালদার গত ৫ জুলাই সিঙাড়ার সঙ্গে চেতনানাশক ওষুধ খাইয়ে একই বাড়ির একাধিক ছাত্রীকে অচেতন করে ধর্ষণের চেষ্টা করেন।

অভিযুক্ত রজত লাল হালদার এসব অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, তিনি নারীদের সম্মান নষ্ট করার কোনো চেষ্টা করেননি। তার বিরুদ্ধে একটি মিথ্যা ধর্ষণ মামলা বরিশাল আদালতে চলছে।

আহুতি বাট্টা গ্রামের এক ছাত্রীর অভিভাবক অভিযোগ করে বলেন, রজত তার মেয়েকে কু-প্রস্তাব দিয়ে আসছিলেন। এ প্রস্তাব সে প্রত্যাখ্যান করেছে। ঘটনার দিন সন্ধ্যায় সিঙাড়ার সঙ্গে চেতনানাশক ওষুধ খাইয়ে অজ্ঞান করে ধর্ষণের চেষ্টা করে। এর আগে তিনি অনেক মেয়ের জীবন নষ্ট করেছেন। আমরা এ ঘটনার বিচার চাই।

মন্তব্যসমূহ (০)


লগইন করুন


Remember me Lost your password?

Don't have account. Register

Lost Password


মন্তব্য করতে নিবন্ধন করুন