কাল থেকে সারাদেশে এলাকাভিত্তিক লোডশেডিং

কাল থেকে সারাদেশে এলাকাভিত্তিক লোডশেডিং
Crickex Sign Up

আগামীকাল মঙ্গলবার (১৯ জুলাই) থেকে শিডিউল অনুযায়ী এলাকাভিত্তিক লোডশেডিংয়ের মাধ্যমে বিদ্যুৎ বিতরণ করা হবে। জ্বালানি তেলের লোকসান কমাতে ডিজেলভিত্তিক বিদ্যুৎ কেন্দ্রগুলো আজ সোমবার থেকে বন্ধ রাখা হবে। সোমবার প্রধানমন্ত্রী কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত এক বিশেষ বৈঠকে এসব সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। রাশিয়া ও ইউক্রেনের মধ্যে যুদ্ধের কারণে জ্বালানি তেলের বাজারে যে অস্থিরতা চলছে তার আচ পড়েছে বিশ্বের বিভিন্ন দেশে।

যা থেকে বাদ যায়নি বাংলাদেশও। এমন অবস্থায় কাল মঙ্গলবার (১৯ জুলাই) থেকে সারাদেশে এলাকাভিত্তিক লোড শেডিং শুরু হবে বলে জানিয়েছে প্রধানমন্ত্রীর জ্বালানি উপদেষ্টা তৌফিক-ই-এলাহী চৌধুরী। তৌফিক-ই-ইলাহী চৌধুরী বলেন, ‘দেশে ডিজেলচালিত বিদ্যুৎ কেন্দ্রগুলোতে বিদ্যুৎ উৎপাদন স্থগিত করা হয়েছে। জ্বালানি তেলের লোকসান কমাতে এমন উদ্যোগ গ্রহণ করা হয়েছে।

যেসব এলাকায় লোডশেডিং থাকবে তা আগে থেকেই গ্রাহকদের জানিয়ে দেওয়া হবে। দিনে অন্তত এক থেকে দুই ঘণ্টা লোডশেডিং থাকবে। বৈঠকে এসেছে আরও বেশ কিছু সিদ্ধান্ত। এসবের মধ্যে রয়েছে, তেল দিয়ে বিদ্যুৎ উৎপাদন স্থগিত করা। সরকারি-বেসরকারি অফিসের সভা হবে ভার্চুয়ালি।

এছাড়া, রাত ৮টার পর থেকে দোকানপাট বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত কার্যকর করতে তাগিদ দিয়েছেন জ্বালানি উপদেষ্টা তৌফিক-ই-ইলাহী চৌধুরী। আর অফিসের সময়সূচীও ১ থেকে ২ ঘণ্টা কমানোর চিন্তা চলছে। অন্যদিকে, বিদ্যুৎ ও জ্বালানি প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ বলেছেন, সপ্তাহে একদিন করে পেট্রোল পাম্প বন্ধ রাখা হবে।

মন্তব্যসমূহ (০)