এবার সৌদি সেনাবাহিনীতে নারীদের চাকরি

 সেনাবাহিনীতে নারী সদস্যদের অন্তর্ভূক্ত করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে সৌদি আরব সরকার। সোমবার সৌদি পত্রিকা আরব নিউজের এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, নির্ধারিত শারীরিক উচ্চতা ও ওজন রয়েছে যেসব নারীর, তারা চলতি বছরই দেশটির সেনাবাহিনীর বিভিন্ন পদে চাকরির জন্য আবেদন করতে পারবেন।

প্রতিবেদনে বলা হয়—সৈনিক, ল্যান্স কর্পোরাল, কর্পোরাল, সার্জেন্ট ও স্টাফ সার্জেন্ট পদে আবেদন করতে পারবেন আগ্রহী সৌদি নারীরা। হাইস্কুল উত্তীর্ণ হওয়াকে আবেদনকারীদের ন্যূনতম যোগ্যতা হিসেবে ধরা হয়েছে।

তবে যেসব সৌদি নারী বিদেশী নাগরিক বিয়ে করেছেন—তারা আবেদন করতে পারবেন না।

সেনাবাহিনীতে নারীদের অংশগ্রহণ বিষয়ক পরিকল্পনা ২০১৯ সাল থেকেই শুরু করেছিল সৌদি সরকার। দেশের বাইরে যেতে হলে পুরুষ আত্মীয়ের অনুমতি নেওয়ার যে বাধ্যবাধকতা দেশটির নারীদের ওপর ছিল, ওই বছর এক সরকারি আদেশে সেটিও রদ করা হয়।

আগের বছর ২০১৮ সালে সৌদি নারীদের গাড়ি ড্রাইভ করার অনুমতি দেয় সরকার। আরব বিশ্বের অন্যান্য দেশ আগেই নারীদের গাড়ি ড্রাইভিঙের অনুমোদন দিলেও ২০১৮ সালের আগ পর্যন্ত সৌদি আরবে কোনো নারী গাড়ি ড্রাইভ করলে আইন ভাঙার জন্য তাকে শাস্তি পেতে হতো।

গতবছর দেশটির আইন ও বিচারবিষয়ক মন্ত্রণালয় সরকারি দলিল ও নথিপত্র বিভাগে ১০০ নারীকে নিয়োগ দিয়েছে। ওই মন্ত্রণালয়ের একজন জ্যেষ্ঠ কর্মকর্তা বলেছেন, শিগগিরেই বিচারক পদেও নারীদের নিয়োগ দেওয়া শুরু হবে।

সৌদি আরবে ব্যাপক সংখ্যায় নারীদের সরাসরি অর্থনৈতিক কর্মকাণ্ডে যুক্ত হওয়া শুরু হয় ২০১১ সালে। ওই বছর দেশটির নারীদের অব্যাহত দাবির মুখে একটি আইন পাস করে তৎকালীন সৌদি সরকার, যেখানে বলা হয়—যেসব দোকানে নারীদের অন্তর্বাস ও প্রসাধন সামগ্রী বিক্রি হয়, সেগুলোতে অবশ্যই নারী কর্মচারী ও বিক্রয়কর্মী নিয়োগ করতে হবে।

সূত্র: আলজাজিরা

মন্তব্যসমূহ (০)


Lost Password


মন্তব্য করতে নিবন্ধন করুন