উত্তেজনা ছড়িয়ে জিতলো মিঠুনের চট্টগ্রাম

চরম প্রতিদ্বন্দ্বিতা গড়েও গাজী গ্রুপ চট্টগ্রামের জয়রথ থামাতে পারলোনা মিনিস্টার গ্রুপ রাজশাহী। হাইস্কোরিং ম্যাচে রাজশাহীকে ১ রানে হারিয়েছে চট্টগ্রাম। টস হেরে আগে ব্যাট করে ৫ উইকেটে ১৭৬ রান সংগ্রহ করে লিটন-সৌম্যরা। জবাবে, ৭ উইকেটে ১৭৫ রান তুলতে সক্ষম হয় আশরাফুল-শান্তরা।

অপ্রতিরোধ্য গাজী গ্রুপ চট্টগ্রাম। আসরে তাদের জয় শতভাগ। তবে, এই প্রথম বেশ বেগ পেতে হলো। তাদের সহজে জিততে দেয়নি মিনিস্টার গ্রুপ রাজশাহী। ইয়াংস্টার নির্ভর দু'দলের লড়াই হয়েছে উপভোগ্য।

দেশের হাইপ্রোফাইল কোচদের দ্বৈরথ। সালাউদ্দিনের চট্টগ্রাম আর সারোয়ার ইমরানের রাজশাহী। ম্যাচ একপেশে হবেনা, ছিলো অনুমিত-অনুমেয়। টস হেরে ব্যাটিংয়ে নামা চট্টগ্রামকে আবারও উড়ন্ত সূচনা উপহার লিটন-সৌম্য'র। ৬২ রানের জুটিতে সৌম্য'র অবদান ৩৪।

খুব একটা অবদান রাখতে পারেননি ক্যাপ্টেন মিঠুন আর শামসুর রহমান শুভ।

ব্যাট হাতে স্যুইট টাইমার লিটন পেয়ে যান আরও একটা ফিফটি। অন্যপ্রান্তে রাজশাহীর বোলারদের ওপর চড়াও মোসাদ্দেক। খেলেন ৪২ রানের মারকুটে ইনিংস। তবে, ৭৮ রানের অপরাজিত ইনিংসে মূল কাজটা করেছেন লিটন। চট্টগ্রামকে এনে দিয়েছেন আসর সর্বোচ্চ ১৭৬ রানের সংগ্রহ।

বড় টার্গেট তাড়া করতে নামা রাজশাহীকে ভালো শুরু এনে দেন আনিসুল ও শান্ত।

৫৬ রানের ওপেনিং জুটি ভাঙেন মোস্তাফিজ। ভালোই খেলতে থাকা অধিনায়ক শান্ত ফেরেন ২৫ রানে।

উইকেটে সংগ্রাম করতে থাকা আশরাফুলের পুঁজি ২০ আর ফজলে রাব্বির ১১। 

রাজশাহীর হাল ধরে রাখা আনিসুলের ব্যাটে আসে ৫৮ রান।

ফ্র্যাঞ্চাইজি ক্রিকেটে নজরকাড়া শেখ মেহেদী ছিলেন রাজশাহীর ভরসা হয়ে। কিন্তু, শরিফুলের শিকার হয়ে ২৫ রান করে তিনি আউট হলে কঠিন হয়ে আসে পথ।

আপ্রাণ চেষ্টা করেছেন ফরহাদ রেজা- রনি তালুকদাররা। কিন্তু, সব চেষ্টা গেছে বৃথা। পুড়তে হয়েছে ১ রানের আক্ষেপে। টানা ৪ জয়ে পয়েন্ট টেবিলের শীর্ষস্থান আরও মজবুত করেছে সালাউদ্দিনের শিষ্যরা।

মন্তব্যসমূহ (০)


Lost Password


মন্তব্য করতে নিবন্ধন করুন