শীর্ষে উঠার সুযোগ নষ্ট করলো বার্সেলোনা

গতকাল লা লিগার শীর্ষে উঠার সহজ সমীকরন ছিল বার্সেলোনার জন্য। গ্রানাদার বিপক্ষে জিতলেই নিশ্চিত হবে রিয়াল মাদ্রিদ ও অ্যাটলেটিকো মাদ্রিদকে পেছনে ফেলে ১০ মাস পর পয়েন্ট টেবিলে লিওনেল মেসিদের শীর্ষস্থান কিন্ত সেই সুযোগ কাজে লাগাতে ব্যার্থ বার্সা। উল্টো নিজেদের মাঠে গ্রানাদার বিপক্ষে ২-১ গোলের ব্যাবধানে হেরে গেছে তারা। শুরুতে এগিয়ে গিয়ে সেই স্বপ্ন আরো চওড়া করে রোনাল্ড কোম্যানের শিষ্যরা। বল দখলেও ছিল বার্সার রাজত্ব। পুরো ম্যাচে ৮০ শতাংশের বেশি সময় বল দখলে রেখে গোলের উদ্দেশে ১৬টি শট নেয় বার্সেলোনা, যার চারটি ছিল লক্ষ্যে। কিন্ত দ্বিতীয়ার্ধের ১৬ মিনিটের ব্যবধানে দুইবার গোল করে বার্সার শীর্ষস্থান দখলের স্বপ্নকে ধুলিসাৎ করে দিয়েছে গ্রানাডা।

ঘরের মাঠে ম্যাচের মাত্র ২৩ মিনিটে লিওনেল মেসির গোলে এগিয়ে যায় বার্সা। আঁতোয়ান গ্রিজমান ও মেসি ওয়ান টু ওয়ান করে বক্সের মধ্যে ঢোকেন। এরপর গ্রিজমান বামদিকে মেসিকে বল বাড়িয়ে দেন। মেসি দূরের পোস্টে শট নিয়ে বল জালে জড়ান। চলতি লা লিগায় মেসির এটি ২৬তম গোল। প্রথমার্ধ শেষ হওয়ার ঠিক আগে সার্জিও বুসকেটসের দুর্দান্ত থ্রু পাসে আবারও সুযোগ পান মেসি। কিন্ত এবার মেসিকে গোলের আনন্দে মেতে উঠতে দেননি গ্রানাদার গোলকিপার। দ্বিতীয়ার্ধে ঘুরে দাঁড়ায় গ্রানাডা। তবে দ্বিতীয়ার্ধের প্রথম সুযোগটি পেয়েছিল বার্সেলোনা কিন্ত গ্রিজম্যান ব্যার্থ হলে লিড বাড়াতে পারেনি স্বাগতিকরা। গ্রিজম্যান মিস করলেও ৬২ মিনিটে সুযোগ নষ্ট করেননি গ্রানাদার ফেরান ম্যাচিস। ৬২তম মিনিটে গোল করে খেলায় গ্রানাদাকে সমতায় ফেরান ম্যাচিস। এই গোলে মূল দায় বার্সার রক্ষণভাগের তারকা অস্কার মিনগুয়েজার। তার পা থেকে বল ফসকে না গেলে হয়তো পুরো খেলার ফলই হতে পারতো অন্যরকম। গোল হজম করার খানিক পর কোনো এক বিষয়ে ক্ষুদ্ধ প্রতিক্রিয়া দেখানোয় লাল কার্ড দেখেন বার্সা কোচ কোম্যান। আর ৭৯ মিনিটের সময় বার্সা হজম করে দ্বিতীয় গোল। এবার স্কোর শিটে নাম তোলেন বদলি নামা ৩৯ বছর বয়সী ফরোয়ার্ড জর্জ মোলিনা। বাকি সময়ে মরিয়া চেষ্টা চালালেও উল্লেখযোগ্য কোনো সুযোগই তৈরি করতে পারেনি বার্সেলোনা। মাঠ ছাড়ে আসরে ষষ্ঠ হারের তেতো স্বাদ নিয়ে।

বার্সার এই পরাজয়ে এখন পর্যন্ত হওয়া ৩৩ ম্যাচে ৭৩ পয়েন্ট নিয়ে লিগ টেবিলের শীর্ষস্থান ধরে রাখলো অ্যাথলেটিকো মাদ্রিদ। সমান ম্যাচে রিয়াল মাদ্রিদ এবং বার্সেলোনা দুই দলেরই সংগ্রহ ৭১ পয়েন্ট। চতুর্থস্থানে থাকা সেভিয়েও পিছিয়ে নেই। তাদের ঝুলিতে আছে ৩৩ ম্যাচে ৭০ পয়েন্ট। লা লিগার আর মাত্র ৫ ম্যাচ বাকি থাকলেও এখনও বলা যাচ্ছে না কে এবার শিরোপার জোড়ালো দাবীদার। পয়েন্ট টেবিলের শীর্ষ চার দলের আছে শিরোপা জয়ের সুযোগ।

মন্তব্যসমূহ (০)


Lost Password


মন্তব্য করতে নিবন্ধন করুন