শিক্ষার্থীদের মোবাইলে আসক্ত না হয়ে খেলাধুলায় মন দিতে হবে

শিক্ষার্থীদের মোবাইলে আসক্ত না হয়ে খেলাধুলায় মন দিতে হবে

করোনার সময়ে শিক্ষার্থীরা বাড়িতে বসে অনলাইনের মাধ্যমে পাঠদান করে আজ তারা মোবাইল ও ল্যাপটপের প্রতি আসক্ত হয়ে পড়েছে। তাই ডিজিটাল লাইফের প্রতি নির্ভরশীলতা কমিয়ে নিজেদের জীবন যাতে নিজেরাই নিয়ন্ত্রণ করতে পারে এ বিষয়ের ওপর গুরুত্ব দিতে হবে। পাশাপাশি শিক্ষার্থীদের খেলাধুলা, শারীরিক কর্মকাণ্ড আরো বাড়াতে হবে।

ঢাকা আহ্ছানিয়া মিশন স্বাস্থ্য সেক্টরে উদ্যোগে ও নেভি এনকোরেজ স্কুল অ্যান্ড কলেজ ঢাকার সার্বিক ব্যবস্থাপনায় তিন দিনব্যাপী মানসিক স্বাস্থ্য বিষয়ে সচেতনতামূলক কার্যক্রমে বক্তারা এ পরামর্শ দেন। তাদের উপস্থিতিতে উদ্বোধনীর মধ্যে দিয়ে আজ প্রথম দিনের অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়েছে। এতে ঢাকা আহ্ছানিয়া মিশন স্বাস্থ্য সেক্টরের অধীনে মনোযত্ন আউটডোর কাউন্সেলিং সেন্টারের ব্যানারে নেভি এনকোরেজ স্কুল অ্যান্ড কলেজ ঢাকার অডিটরিয়ামে এ সচেতনতামূলক কার্যক্রম শুরু হয়।

তিন দিনব্যাপী এই অনুষ্ঠানের উদ্বোধন করেন নেভি এনকোরেজ স্কুল অ্যান্ড কলেজের অধ্যক্ষ এম ইসমাইল, এনইউপি (বিএন)। অনুষ্ঠানের স্বাগত বক্তব্যে ঢাকা আহ্ছানিয়া মিশন স্বাস্থ্য সেক্টরের সিনিয়র সাইকোলোজিস্ট রাখী গাঙ্গুলি ঢাকা আহ্ছানিয়া মিশনের কার্যক্রম তুলে ধরার পাশাপাশি মানসিক স্বাস্থ্য ভালো রাখার প্রয়োজনীয়তার কথা তুলে ধরেন। অনুষ্ঠানে আলোচক হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের মনোবিজ্ঞান বিভাগের প্রফেসর ড. আফরোজা হোসেন।

এ সময় তিনি শারীরিক স্বাস্থ্যের পাশাপাশি মানসিক কতটা গুরুত্বপূর্ণ এ বিষয়ে আলোকপাত করেন। তারা চাপ, রাগ, উদ্বেগ ব্যবস্থাপনা করার প্রয়োজনীয়তা এবং উপায় সম্পর্কে জানান। এ সময় আলোচক হিসেবে আরো উপস্থিত ছিলেন অ্যাসোসিয়েট প্রফেসর সৈয়দ তানভির রহমান ও অ্যাসিস্ট্যান্ট প্রফেসর সেলিম হোসেন।

পরবর্তীতে মুক্ত আলোচনা অনুষ্ঠিত হয়। তিন দিনের এই কার্যক্রমে নেভি এনকোরেজ স্কুল অ্যান্ড কলেজ ঢাকার ৮০০ শিক্ষার্থী, ৮০ জন শিক্ষক এবং ২০০ অভিভাবক অংশগ্রহণ করবেন। এ কার্যক্রমে চাপ, উদ্বেগ, রাগ নিয়ন্ত্রণ এবং প্যারেন্টিং স্টাইলের ওপর সচেতনতামূলক প্রশিক্ষণ উপস্থাপন করা হয়। পরে ছাত্র-ছাত্রীদের মধ্যে উদ্বেগ, রাগ, সমাজবিমুখতা ও দুর্দশা পরিমাপক স্কেল পরিমাপ করা হয় এবং বিভিন্ন বিষয়ের ওপর কুইজ পরিচালনা করা হয়।

মন্তব্যসমূহ (০)


Lost Password