নতুন ঘরে বসবাস শুরু করলেন সেই ষাটোর্ধ নিঃসন্তান বিধবা রোকেয়া

নতুন ঘরে বসবাস শুরু করলেন সেই ষাটোর্ধ নিঃসন্তান বিধবা রোকেয়া

ফরিদপুর প্রতিনিধি: নতুন ঘরে বসবাস শুরু করলেন সেই ষাটোর্ধ নিঃসন্তান বিধবা রোকেয়া বেগম (রুকি)। শুরু করেছেন বসবাসও। এই ষাটোর্ধ নিঃসন্তান বিধবা মহিলা ফরিদপুরের সালথা উপজেলার গট্টি ইউনিয়নের মেহেরদিয়া গ্রামের মৃত সোহরাফ মাতুব্বরের স্ত্রী থাকেন মরহুম পিতা আকমল মুন্সীর ভিটায়।

মঙ্গলবার (৭ জুন) বিকালে সালথা উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোছাঃ তাছলিমা আকতার রোকেয়া বেগমের বাড়ীতে গিয়ে বসত বাড়ী পরিদর্শন করেন এবং সার্বিক বিষয়ে খোঁজ খবর নিয়ে নতুন ঘরে উঠিয়ে দেন। এ সময় অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, উপজেলা মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান রুপা বেগম, উপজেলা প্রকৌশলী মোঃ তৌহিদুর রহমান, উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা ও আশ্রায়ণ প্রকল্প সচিব পরিতোষ বাড়ৈ, গট্টি ইউনিয়ন চেয়ারম্যান মোঃ হাবিবুর রহমান লাভলু প্রমূখ।

এসময় সালথা উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোছাঃ তাছলিমা আকতার বলেন, আমরা পত্রিকার মাধ্যমে জানতে পারি ষাটোর্ধ বিধবা রোকেয়া বেগম নামক একজন মহিলা আছে। যার ছেলে-মেয়ে, স্বামী, সন্তান, ভাই-বোন কেহ নাই। সে অসহায় অবস্থায় আছে। তার ভিটা আছে কিন্তু সে সরকারি জায়গায় যেতে চান না। পরবর্তীতে আমরা উপজেলা সমাজসেবা অফিসারের সাথে আলোচনা করে ৫০ হাজার টাকা অনুদান পাই।

ঐ টাকা দিয়ে উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে তাকে একটু মাথা গোজার ঠাই করে দেই। ঘর সম্পন্ন হওয়ার পর আজ তাকে ঘরে উঠিয়ে দিতে এসেছি। পাশাপাশি তিনি রোকেয়াকে ভবিষ্যতে যেকোনো ধরনের সহযোগিতা করার আশ্বাস দেন। এসময় তিনি সাংবাদিকদের ধন্যবাদ দেন এমন একজন অসহায় নারীর বিষয়টি তুলে ধরার জন্য। উল্লেখ্য, গত ১১ জানুয়ারী,২০২২ ইং তারিখে “সরকারি কোনো সুযোগ-সুবিধা পায়নি ষাটোর্ধ্ব নিঃসন্তান বিধবা রোকেয়া” শিরোনামে বিভিন্ন অনলাইন মিডিয়া ও পত্র-পত্রিকায় একটি নিউজ প্রকাশ হয়।

মন্তব্যসমূহ (০)