নওগাঁর পত্নীতলা স্বতন্ত্র প্রার্থীর প্রচারে বাধা, প্রাণনাশের হুমকির অভিযোগ

নওগাঁর পত্নীতলা স্বতন্ত্র প্রার্থীর প্রচারে বাধা, প্রাণনাশের হুমকির অভিযোগ

নওগাঁর পত্নীতলা উপজেলার পত্নীতলা ইউনিয়নে ইউপি নির্বাচনে স্বতন্ত্র প্রার্থী ও তার কর্মী-সমর্থকদের হুমকি-ভয়ভীতির প্রতিবাদে ও সুষ্ঠ নির্বাচনের দাবিতে সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়েছে।

আজ রবিবার (২ জানুয়ারি) বেলা সাড়ে ১১টায় পত্নীতলায় ইউনিয়নের আনারস মার্কার স্বতন্ত্র প্রার্থী ( বিদ্রোহী) ওবায়দুল ইসলাম স্বপন সংবাদ সম্মেলন করেন। সংবাদ সম্মেলনে ওবায়দুল ইসলাম স্বপন অভিযোগ করেন, আগামী ৫ জানুয়ারি পঞ্চম ধাপে ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে নৌকা প্রতীক পাওয়ার চেষ্টা করেছিলাম। নৌকা প্রতীক না পাওয়ায় আমি নির্বাচন থেকে সরে দাঁড়াতে চেয়েছিলাম। কিন্তু ইউনিয়নবাসীর দাবির প্রেক্ষিতে স্বতন্ত্র প্রার্থী হয়েছি। এরপর থেকে এই ইউনিয়নের আ.লীগের নৌকা মনোনীত প্রার্থী নাসির উদ্দিনসহ তার কর্মী-সমর্থকরা সব সময়ই আমাকে এবং আমার সমর্থদের নানাভাবে ভয়ভীতি ও প্রাণনাশের হুমকি দিয়ে আসছে।

এছাড়া গত ৩১ ডিসেম্বর রাতে আমার পাঁচটি নির্বাচনি ক্যাম্প ভাংচুর করে আমার পোষ্টার ছিড়ে ফেলেছে তারা। সর্বশেষ ৩০ ডিসেম্বর প্রচারণা শেষে রাতে বাড়ি ফেরার পথে নৌকার সমর্থকরা মটরসাইকেল আটকিয়ে আমাকে মেরে ফেলার হুমকি দেয়। এখন নৌকা প্রার্থীর লোকজনের বিভিন্নভাবে হুমকি দিয়েই যাচ্ছে নানাভাবে। তিনি আরো বলেন, এ বিষয়ে উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তার বরাবর লিখিত অভিযোগ দিয়েছি। কিন্তু এখনও আমার অভিযোগের বিষয়ে কোন উদ্যোগ নেয়া হয়নি। এমনভাবে হুমকি, নির্বাচন ক্যাম্প ভাংচুর ও প্রচার-প্রচারণায় বাঁধা সৃষ্টি করলে নির্বাচন অবাধ,সুষ্ঠ ও নিরপেক্ষ হবেনা বলে মনে করছি। আমি আমার অভিযোগের সুষ্ঠ তদন্ত করে যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহণের দাবি জানাচ্ছি।

এ বিষয়ে নৌকা প্রতীকের প্রার্থী নাসির উদ্দিন এর সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, আমার বিরুদ্ধে যেসব অভিযোগ করা হয়েছে তা মিথ্যা,বানোয়াট ও ভিত্তিহীন। আমি বা আমার কর্মী-সমর্থকরা ওবায়দুল ইসলামকে কোন হুমকি দেয়নি। তার নির্বাচন ক্যাম্প ভাংচুর ও প্রচার-প্রচারণায় বাঁধা দেয়ার প্রশ্নই ওঠেনা। আমার বিরুদ্ধে মিথ্যা অভিযোগ করে সে নির্বাচনে সুবিধা নেয়ার চেষ্টা করছে। যাতে ভোটাররা আমাকে ভুল বোঝে। চারদিকে নৌকার গণজোয়ারে তিনিই হয়তো ভয়ে আছেন। যার কারনে এমন মিথ্যা অভিযোগ রটাচ্ছেন আমার বিরুদ্ধে। বিষয়টি নিয়ে জানতে চাইলে পত্নীতলা উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা জাহিদুল ইসলাম বলেন, পত্নীতলা ইউনিয়নের স্বতন্ত্র প্রার্থী ওবায়দুল ইসলাম একটি লিখিত অভিযোগ করেছেন। এ বিষয়ে তদন্ত করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য থানায় এবং উপজেলা নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটকে চিঠি দেয়া হয়েছে। একটি অবাধ,সুষ্ঠ ও নিরপেক্ষ নির্বাচনের জন্য আমরা সব ধরণের ব্যবস্থা গ্রহণ করেছি।

পত্নীতলা উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) লিটন সরকার জানান, অভিযোগের বিষয়ে তদন্ত করা হবে। নির্বাচন অবাধ,সুষ্ঠ ও নিরপেক্ষ করতে সব ধরনের ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে। আমরা আশা করছি একটি শান্তিুপূর্ণ নিবার্চন উপহার দিতে পারবো।

মন্তব্যসমূহ (০)


Lost Password