ভালো কাজ হলে সব জায়গাতেই কাজ করার ইচ্ছা আছে- বিদ্যা সিনহা মিম

ভালো কাজ হলে সব জায়গাতেই কাজ করার ইচ্ছা আছে- বিদ্যা সিনহা মিম

বর্তমান সময়ের অন্যতম ব্যাস্ত ও জনপ্রিয় অভিনেত্রী বিদ্যা সিনহা মিম। সম্প্রতি ‘খুফিয়া’ নামের বলিউডের একটি সিনেমার প্রস্তাব ফিরিয়ে দেয়ায় ব্যাপক আলোচনা হচ্ছে তাকে নিয়ে। বলিউডের ছবি ফিরিয়ে দেয়া, বর্তমান ব্যস্ততা, তার ইউটিউব চ্যানেল, পুজা ও বিভিন্ন সাম্প্রতিক বিষয় নিয়ে কথা হলো তার সাথে। সাক্ষাৎকার নিয়েছেন - শিহাব আহমেদ

কেমন আছেন?

বিদ্যা সিনহা মিম: মোটামুটি আছি। একটু ঠান্ডা লাগছে। তাই পুরোপুরি ভাল বলতে পারছি না।

বর্তমান ব্যাস্ততা কি নিয়ে?

বিদ্যা সিনহা মিম : অন্তর্জাল সিনেমার শুটিং আবার শুরু হচ্ছে। এছাড়া কিছু ব্র্যান্ডের প্রমোশন করতেছি। মোটামুটি এই বিষয়গুলো নিয়েই ব্যাস্ত সময় পাড় করছি।

পেন্ডামিকের কারণে অনেক কিছুতেই ব্যাপক পরিবর্তন এসেছে। নিশ্চয় শুটিংয়ের ক্ষেত্রেও তাই। সেই পরিবর্তন টার কতটুকু নিজেকে মিলিয়ে নিয়েছেন।

বিদ্যা সিনহা মিম : এখন সবকিছুই আবার আগের অবস্থানে ফিরতে শুরু করেছে। মাঝের সময়টার সাথে খাপ খাইয়ে নিতে অনেক কষ্ট হয়েছে। তবে একটা বিষয়ে চিন্তা করলে খুব মন খারাপ হয়। সেটা হলো সিনেমা হল। সিনেমা হলের আগের অবস্থাটা এখনও ফিরে আসে নাই। যখন আমাদের সিনেমা হলের অবস্থা আগের যায়গাতে ফিরে আসবে তখন খুব ভাল লাগবে।

সম্প্রতি বলিউডের ‘খুফিয়া’ নামক একটি ছবির প্রস্তাব ফিরিয়ে দিয়েছেন।

বিদ্যা সিনহা মিম: হ্যাঁ। আসলে সিনেমাটির চিত্রনাট্য পড়ে মনে হয়েছে আমাদের দেশকে সঠিকভাবে উপস্থাপন করা হয়নি। আমাদের দেশের রাজনীতি ও অন্য কিছু বিষয় ছিল যা সঠিকভাবে না জেনেই উপস্থাপন করা হয়েছে। আমার কাছে মনে হয়েছে এরকম ভুল কিছুর সাথে যুক্ত হওয়াটা ঠিক হবে না তাই এই ছবি থেকে সরে এসেছি। এছাড়া কাছের কয়েকজনের সাথেও আলোচনা করেছিলাম তারাও আমার সাথে একইমত প্রদান করেন।

ভবিষ্যতে সবকিছু ঠিকঠাক থাকলে বলিউডের সিনেমায় কাজ করার ইচ্ছা আছে কিনা?

বিদ্যা সিনহা মিম: কেন নয়! অবশ্যই করবো। ভালো কাজ হলে সব জায়গাতেই কাজ করার ইচ্ছা আছে।

দেশের সবচেয়ে বড় বিজ্ঞাপন প্রতিযোগিতা কমওয়ার্ডের দশম আসরে নে তিনটি স্বর্ণসহ মোট সাত ক্যাটাগরিতে পুরস্কার নিয়ে ‘দ্য মোস্ট অ্যাওয়ার্ডেড ক্যাম্পেইন’–এর তকমা জিতে নিয়েছে আপনার অভিনীত ‘নট হার ফল্ট’। সেই সম্পর্কে যদি কিছু বলতেন?

বিদ্যা সিনহা মিম : অবশ্যই এটা আমার জন্য অনক বড় পাওয়ার। যখন আমার করা একটা কাজ এতগুলো স্বীকৃতি পায় তখন খুব ভাল লাগা কাজ করে। এই কাজটার সাথে যে টিমটা ছিল বাটিক কন্টেন্ট। ওরা কিন্ত নতুন এজেন্সি। নতুন এজেন্সি হিসেবে ওরা যে পরিমান রেসপন্স পেয়েছে ওই বিষয়টাও খুব বড় একটা বিষয় কারণ আমিও ঐ কাজটর একটা অংশ। আমার অভিনয়টা খুব চ্যালেঞ্জিং ছিল কারণ আমর কাজটা ছিল মানুষকে বিশ্বাস করানো। আমি সেখানে নিজেকে সৌভাগ্যবান বলতেই পারি যে আমি মানুষদের বিশ্বাস করাতে পেরেছি কারণ মানুষ বিশ্বাস করছে এবং তাদের কাছে ভাল লাগছে বিধায় এটা এতগুলো বিভগে স্বিকৃতি পেয়েছে। যারাই এই কাজটা দেখেছে তাদের দেখলাম সবাই এটার পক্ষে ছিল। একটা মানুষও বলে নাই এটা কেন এরকম হইছে আর কাজের মাধ্যমে একটা ভাল মেসেজ আমাদের সমাজকে দেয়ার বিষয়টা আমার কাছে খুব ভাল লেগেছে।

কয়েকদিন আগেই আপনার পোষা বিড়াল বার্বি মারা গেছে। তার পরিবর্তে অন্য কোন কোন বিড়াল ছানা কি এসেছে অতীথি হয়ে

বিদ্যা সিনহা মিম : আসলে আমার তিনটি পেট ছিল । একটা ক্যান্ডি (ডগ), একটা হলো জোজো আর বার্বি । বার্বি ছিল সবথেকে ছোট। ক্যান্ডি থাকে আমার মার সাথে আর জো জো নিজের মতো করে থাকতেই পছন্দ করে আর বার্বি আমার সাথে থাকতো। ও মেয়ে বিড়াল ছিল আর অনেক মিশুক টাইপের ছিল। আমি সারদিন বাসায় থাকলে ও আমার রুম থাকতো, আমার পাশে শুয়ে থাকতো, ওর সাথে আমার কানেকশটা অনেক বেশি ছিল। আসলে ও আমার কাছে শুধু পোষা প্রাণী ছিল না। মনে হতো ও আমার পরিবারের অংশ। ও মারা যাবার পর আমার কাছে মনে হয়েছে খুব কাছের একটি প্রিয় জিনিসকে হারিয়েছি। ও মারার যাবার পর আমি দুই দিন কান্নাই থামাতে পারি নাই। অনেকেই হয়তো বলছে একটি বিড়াল মারা গেছে এটা একটা নরমাল ব্যাপার। আমার কাছে মনে আমি মনে হয় আমার ফিলিংসটা বোঝাতে পারি না। যারা পেট পালে তারা হয়তো আমার ব্যাপারটা বুঝবে। তার পরিবর্তে আরেকটি বিড়াল ছানা উপহার পেয়ছি। তার নাম রেখেছি পিকু।

পেন্ডামিকের সময় ইউটিউব চ্যানেল খুলেছিলেন। শর্টফিল্ম ‘কানেকশন’ দিয়ে যাত্রা শুরু এরপর ‘মিম কাস্টাডি’ শো করলেন। এরপর অনেকদিন যাবত নতুন কোন ভিডিও নেই আপনার চ্যানেলে।

বিদ্যা সিনহা মিম: আমি আসলে খুব লেজি একটা মানুষ। করোনার পর শুটিং শুরু হয়ে যাওয়ার কারণে ব্যাস্ত হয়ে পড়েছি। তাই আর ভিডিও বানাতে পারছি না। ছবির শুটিং এর সময় আমি কিছু ভিডিও করে রেখেছি। সেই ভিডিও গুলো সিনেমা রিলিজ হওয়ার পর দিতে হবে। আশা আছে ইউটিউবের জন্য কাজ করবো। আসলে বড় কিছু করার পরিকল্পনা আছে তাই বাসায় বসে বসে রান্নার ভিডিও দিতে আর ভাল লাগছিল না তাই অনেকদিন চ্যানেলে নতুন কোন ভিডিও নাই।

গত মাসের শুরুতে গনমাধ্যমে বলেছিলেন সামনেই নতুন ছবির খবর আসছে৷ নতুন কাজের কি খবর?

বিদ্যা সিনহা মিম : সবকিছু চুড়ান্ত হলে অবশ্যই জানাবো। এখনও পর্যন্ত কোন নতুন কাজ লক হয় নাই। তাই বিস্তারিত বলতে চাচ্ছি না। সামনেই পুজা ।

এবারের পুজার পরিকল্পনা কি করা হয়েছে ?

বিদ্যা সিনহা মিম : পুজার পরিকল্পনা এখনও শেষ হয় নাই। এখনও পরিকল্পনা কর যাচ্ছি। তবে পুজার সময়টা কোথায় কাটাবো এখনও সিন্ধান্ত নেই নাই। তবে পরিকল্পনা করছি।

পুজোর এমন কোন স্মৃতি যা প্রতি পুজোর সময় মনে পড়ে

বিদ্যা সিনহা মিম : ছোটবেলায় পুজার সময় সবজাগায় ঘুরতে যেতে পারতাম। অনেক মজা হতো ওই জিনিসটা খুব মনে পড়ে। এখন চাইলেই কোন জায়গায় যেতে পারি না। বাসার মধ্যেই থাকতে হয়। পূজা দিতে গেলেও একটা নমষ্কার দিয়ে চলে আসতে হয়। আসলে আগের যে লাইফটা ছিল সেই লাইফটার কথাই প্রতিবার মনে পড়ে৷

শরীর চর্চায় বেশ মনোযোগী হয়েছেন। আপনার দর্শকদের উদ্যেশ্যে শরীর চর্চা নিয়ে কিছু বলতেন

বিদ্যা সিনহা মিম : শরীর চর্চা আমাদের সকলের নিয়মিত করা উচিত করোনার মধ্যে যখন ঘরে বসে ছিলাম তখন মনে হলো শরীরচর্চায় নিয়মিত হওয়া দরকার। এইভাবেই শুরু করা। সবাইকে বলবো জীবনে ফিট থাকাটা অনেক বেশি প্রয়োজন আর ফিট থাকতে হলে শরীরচর্চাটা খুব প্রয়োজন। খাওয়াটা মেইনটেইন করা উচিত। তেল জাতীয় খাবারটা এড়িয়ে চলার চেষ্টা করুন। স্বাস্থ্যকর খাবার খান, সুস্থ থাকুন।

মন্তব্যসমূহ (০)


Lost Password