নওগাঁর বদলগাছীতে একটি বাড়িতে ডাকাতির সময় ডাকাত সদস্য আটক

নওগাঁর বদলগাছীতে একটি বাড়িতে ডাকাতির সময় ডাকাত সদস্য আটক

নওগাঁর বদলগাছী উপজেলায় একটি বাড়িতে দুর্ধর্ষ ডাকাতি হয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। গতকাল শুক্রবার দিবাগত গভীর রাতে উপজেলার কোলা ইউনিয়নের পার-আধাইপুর গ্রামের রমেন চন্দ্র মন্ডলের বাড়িতে এই ডাকাতির ঘটনা ঘটেছে।

ডাকাতেরা ওই বাড়ির তিন জন সদস্যকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে জখম করে নগদ ১ লাখ ১২ হাজার টাকা ও ৭ ভড়ি স্বর্ণালংকার লুট করেছে। ডাকাতি শেষে পালানোর সময় ডাকাত দলের এক সদস্যকে জাপটে ধরে ফেলেন গ্রামবাসীরা। পরে পুলিশ এসে ডাকাত দলের ওই সদস্যকে থানায় নিয়ে গেছে।

আটক হওয়া ডাকাত দলের ওই সদস্যের নাম আব্দুর রহমান তাজেল (৫৬)। তিনি জয়পুরহাটের ক্ষেতলাল উপজেলার দাশড়া খাঁ পাড়া গ্রামের মৃত. আমির মন্ডলের ছেলে বলে পুলিশ নিশ্চিত করেছে। ডাকাতের ধারালো অস্ত্রের আঘাতে আহতরা হলেন, রমেন চন্দ্র মন্ডলের স্ত্রী কানুন রাণী (৫৫), তাঁর দুই ছেলে পিন্টু কুমার মন্ডল (৩৫) ও মিন্টু কুমার মন্ডল (২৯)। এদের মধ্য পিন্টু কুমার মন্ডলকে বদলগাছী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে।

শনিবার দুপুরে রমেন চন্দ্র মন্ডলের বাড়িতে গিয়ে দেখা গেছে, বাড়ির মুল ফটকের পাশের একটি জানালার পাল্লা ও গ্রীল খোলা রয়েছে। দুটি ঘরের আসবাবপত্র ভাঙচুর করা হয়েছে। ঘরের ভেতর জিনিষপত্র ছড়িয়ে ছিটিয়ে পড়ে আছে। রমেন চন্দ্র মন্ডলের ছোট ছেলে মিন্টু কুমার বলেন, শুক্রবার রাতে আমরা সবাই খাওয়া-দাওয়া শেষে ঘুমিয়ে পড়ি। রাত দুইটার পর কালো হাফ প্যান্ট ও কালো সান্ডো গেঞ্জির পরা ৫ থেকে ৭ জন ব্যক্তি মায়ের ঘরে ঢুকে মাকে মারপিট করে তাঁর কানের দুল ছিড়ে নেয়। আমরা মায়ের চিৎকার শুনে আমরা ঘর থেকে বের হতেই ডাকাত দলের সদস্যরা আমাদের দুই ভাইকে ধরে ফেলেন। এরপর ডাকাতেরা আমাদের দুই ভাইকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে গলা, পেট ও হাতে আঘাত করে। এরপর ডাকাতেরা আমাদের দুটি ঘরের বাক্স ও আলমিরা ভেঙে নগদ এক লাখ ১২ হাজার টাকা ও ৭ ভরি স্বর্ণালঙ্কার লুট করে। আমাদের চিৎকারে আশে পাশের লোকজন তাৎক্ষণিকভাবে বাড়ির ভেতরে ঢোকার চেষ্টা করেও পারেনি।

আমাদের বাড়ির আশপাশের সবার বাড়ির দরজা বাহির থেকে আটকানো ছিল। পরে গ্রামের লোকজন মুঠোফোনে ডাকাতির ঘটনাটি কোলা ইউনিয়নের এক নম্বর ওর্য়াডের সদস্য ফরহাদ হোসেনকে জানান। এরপর ফরহাদ হোসেন ঘটনাটি থানা পুলিশকে জানায়। এরপর গ্রামের লোকজন বিকল্প ব্যবস্থায় বের হন। ডাকাত দলের সদস্যরা বিষয়টি টের পেয়ে দ্রুত সেখান থেকে পালিয়ে যাচ্ছিলেন। এ সময় আমরা ডাকাত দলের পিছু নিয়ে ধাওয়া করি ও ডাকাত দলের এক সদস্যকে ধাক্কা দিয়ে পুকুরের পানিতে ফেলে দেই ও তাঁকে ধরে ফেলি। অন্যরা মালামাল নিয়ে পালিয়ে যায়। এরপর পুলিশ এসে আটক ডাকাত দলের সদস্যকে থানায় নিয়ে গেছেন। আমি ও আমার মা রাতেই প্রাথমিক চিকিৎসা নিয়েছি। আমার বড় ভাই পিন্টু কুমার মন্ডলকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স ভর্তি করিয়েছি।

কোলা ইউনিয়ন পরিষদের এক নম্বর ওর্য়াডের সদস্য ফরহাদ হোসেন বলেন, রমেন চন্দ্র মন্ডলের বাড়িতে ডাকাতির সময় আশপাশের সবার বাড়ির দরজা বাহির থেকে আটনো ছিল। আমি ৯৯৯ কল করে পুলিশকে ডাকাতির ঘটনাটি জানিয়েছিলাম। খবর পেয়ে বদলগাছী থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) আতিকুল ইসলাম সহ পুলিশের একটি টিম দ্রুত ঘটনাস্থলে এসে ঘটনার বিস্তারিত শুনে আটক ডাকাত দলের এক সদস্যকে থানায় নিয়ে যায়। খবর পেয়ে শনিবার দুপুরে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মহাদেবপুর-বদলগাছীর সার্কেল এ.টি.এম. মাইনুল ইসলাম সহ বদলগাছী থানা অফিসার ইনচার্জ আতিকুল ইসলাম ও তদন্ত ওসি রায়হান, এস আই আজিস ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন।

বদলগাছী থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) আতিকুল ইসলাম বলেন, রাতেই খবর পেয়ে দ্রুত ঘটনাস্থলে গিয়েছিলাম। সেখান থেকে আব্দুর রহমান তাজেল নামের একব্যক্তিকে আটক করা হয়েছে। আটক হওয়া ব্যক্তির বাড়ি জয়পুরহাট জেলার ক্ষেতলাল উপজেলার দাশড়া গ্রামে। এঘটনায় থানায় একটি ডাকাতি মামলা হয়েছে।

মন্তব্যসমূহ (০)


Lost Password