টিপুর শরীরে ৭টি গুলি ও প্রীতির বুক ছিদ্র করে বেরিয়ে যায় একটি গুলি

টিপুর শরীরে ৭টি গুলি ও প্রীতির বুক ছিদ্র করে বেরিয়ে যায় একটি গুলি

রাজধানীর শাহজাহানপুরে ‘ফিল্মিস্টাইলে’ এলোপাতাড়ি গুলি করে আওয়ামী লীগ নেতা জাহিদুল ইসলাম টিপুকে হত্যা করা হয়েছে। একই ঘটনায় গুলিবিদ্ধ হয়ে রিকশাআরোহী সামিয়া আফরান জামাল প্রীতি নামের এক কলেজছাত্রী নিহত হয়েছেন। ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতাল মর্গে শুক্রবার দুপুরে নিহত টিপু ও প্রীতির লাশ ময়নাতদন্ত সম্পন্ন হয়েছে। ময়নাতদন্ত সম্পন্ন করেন ঢামেক ফরেনসিক বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক ডা. জান্নাতুন নাইম।

ঢামেক মর্গ সূত্র জানায়, টিপুর শরীর থেকে সাতটি গুলি বের করা হয়েছে। আর প্রীতির শরীরে কোনো গুলি পাওয়া যায়নি। কারণ তার শরীরের এক দিক দিয়ে ঢুকে অন্যদিক দিয়ে একটি গুলি বেরিয়ে গেছে। ময়নাতদন্তের আগে টিপু ও প্রীতির লাশের সুরতহাল তৈরি করা হয়। প্রীতির লাশের সুরতাল করেন শাহজাহানপুর থানার এসআই তমা বিশ্বাস। প্রীতির লাশের সুরতহাল প্রতিবেদনে এসআই তমা উল্লেখ করেন, গতকাল বৃহস্পতিবার রাতে প্রীতি নিজের বাসা থেকে রিকশাযোগে বান্ধবীর সঙ্গে তাঁর বাসায় যাচ্ছিলেন।

রাত আনুমানিক সোয়া ১০টার দিকে উত্তর শাহজাহানপুর সড়কে এলে দুষ্কৃতকারীরা এলোপাতাড়ি গুলি করে। এতে তিনি গুলিবিদ্ধ হন। হাসপাতালে নিয়ে গেলে কিছুক্ষণের মধ্যে চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন। সুরতহাল প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়, প্রীতির বাম স্তনের ওপরে একটি ছিদ্র এবং পিঠের ডান পাশে মাঝ বরাবর একটি গোল চিহ্ন রয়েছে। এদিকে টিপুর লাশের সুরতহাল করেছেন শাহজাহানপুর থানার এসআই ঠাকুর দাস মালো।

সুরতহাল প্রতিবেদনে এসআই ঠাকুর দাস উল্লেখ করেন, ‘টিপুর গলার পাশে একটি গোলাকার ছিদ্র চিহ্ন আছে, বুকের বাঁঁ পাশে একটি ছিদ্র চিহ্ন, নাভির ওপরে পেটের মধ্যভাগে একটি, বাম বগলের কাছে একটি, বাম কাঁধের ওপর দুটি, পিঠের বাম পাশে একটি, পিঠের ডান পাশে কোমরে চারটি, ডান নিতম্বে তিনটি গোলাকার ছিদ্র চিহ্ন রয়েছে।’ তবে এসব বিষয়ে সংশ্লিষ্ট কোনো চিকিৎসকের আনুষ্ঠানিক বক্তব্য এখনো পাওয়া যায়নি।

উল্লেখ্য, রাজধানীর শাহজাহানপুরে আমতলা মসজিদ এলাকায় গতকাল বৃহস্পতিবার রাত ১০টার দিকে ইসলামী ব্যাংক হাসপাতালের সামনের সড়কে মাইক্রোবাসে থাকা টিপুকে (৫৪) লক্ষ্য করে মুখোশ পরা (কেউ বলছেন হেলমেট পরা) দুই যুবক এলোপাতাড়ি গুলি চালায় বলে জানান স্থানীয়রা।

এতে টিপু, তার চালক মুন্না এবং পাশে রিকশা আরোহী বদরুন্নেসা কলেজের ছাত্রী সামিয়া আরেফিন প্রীতি (২৪) গুলিবিদ্ধ হন। স্থানীয়রা জানান, হামলার সময় টিপু একটি গাড়িতে ছিলেন। দুর্বৃত্তরা এলোপাতাড়ি গুলি চালায়। রাত সোয়া ১১টার দিকে তাদের ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে জরুরি বিভাগে নিলে কর্তব্যরত চিকিৎসক টিপু ও প্রীতিকে মৃত ঘোষণা করেন।

মন্তব্যসমূহ (০)


Lost Password