সৌদি আরবে সিনেমা বানাতে ৪০ শতাংশ খরচ দিবে সরকার

সৌদি আরবে সিনেমা বানাতে ৪০ শতাংশ খরচ দিবে সরকার

সৌদি ফিল্ম কমিশন, দেশটির সংস্কৃতি, প্রাকৃতিক সৌন্দর্য, ইতিহাস ও সেখানকার মানুষের গল্প নিয়ে সিনেমা নির্মাণের পেছনে ব্যয় করা অর্থের সর্বোচ্চ ৪০ শতাংশ পর্যন্ত ফেরত পাবেন প্রযোজকরা। সৌদি আরবে ৩৫ বছর চলচ্চিত্র নিষিদ্ধ ছিল। ২০১৮ সালে চলচ্চিত্রের ওপর থেকে নিষেধাজ্ঞা তুলে নিয়ে সেখানে সিনেমা হল চালু করে দেশটির সরকার। এর মধ্য দিয়ে মধ্যপ্রাচ্যের দেশটি চলচ্চিত্র শিল্পে নতুন পথে হাঁটতে শুরু করে।

এবার এ শিল্পের প্রসারে আরো একটি পদক্ষেপ নিল সৌদি সরকার। সিনেমা নির্মাণ করলে সর্বোচ্চ ৪০ শতাংশ পর্যন্ত খরচ দেশটির সরকার দেবে বলে ঘোষণা দেয়া হয়েছে। ৭৪তম কান চলচ্চিত্র উৎসবে এমনই ঘোষণা দিয়েছে সৌদি ফিল্ম কমিশন। কমিশন ঘোষণা দিয়েছে, সৌদি আরবের সংস্কৃতি, প্রাকৃতিক সৌন্দর্য, ইতিহাস ও সেখানকার মানুষের গল্প উঠে এলে সেসব সিনেমা নির্মাণের পেছনে ব্যয় করা অর্থের সর্বোচ্চ ৪০ শতাংশ পর্যন্ত ফেরত পাবেন ছবির নির্মাতা প্রযোজকরা। কমিশন আরো বলছে, তরুণ পরিচালক ও প্রযোজকদের নিয়ে সৌদি আরবের চলচ্চিত্র শিল্প মধ্যপ্রাচ্যে দ্রুতগতিতে এগোচ্ছে।

আবেদনের জন্য একটি ডেডিকেটেড অনলাইন প্লাটফর্ম এরই মধ্যে চালু করা হয়েছে। সিনেমা বানানোর পরিকল্পনা নিয়ে সেখানে আবেদনের আহ্বান জানিয়েছে সৌদি ফিল্ম কমিশন। সৌদি ফিল্ম কমিশনের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা আল ইয়াফ বলেন, ‘সৌদি আরবের চলচ্চিত্র শিল্প দ্রুতগতিতে এগিয়ে যাচ্ছে। এ কারণে আমরা স্থানীয় কলাকুশলীদের প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা করেছি। অবকাঠামোগত উন্নয়নে আমরা বিনিয়োগ করছি।

এ শিল্পকে এগিয়ে নিতে আমরা সব ধরনের সিনেমাকে সমর্থন দেব।’ এরই অংশ হিসেবে গত বছরের ডিসেম্বরে সৌদি আরব জেদ্দায় আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসব রেড সি ফিল্ম ফেস্টিভ্যাল’-এর আয়োজন করে। জর্ডান, সৌদি আরব, লেবানন, তিউনিসিয়া, মিসরসহ ৬৭ দেশের ৩০টিরও বেশি ভাষার ১৩৮টি পূর্ণ ও স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র প্রদর্শিত হয় ওই উৎসবে। শুধু তাই নয়, ২০৩০ সালের মধ্যে সারা দেশে ৩৫০টি সিনেমা হল এবং ২ হাজার ৫০০ মুভি স্ক্রিন তৈরির লক্ষ্য স্থির করেছে সৌদিআরব ।

প্রায় তিন যুগ বন্ধ থাকার পর চার বছরে আগে আবারও সৌদি আরবে সিনেমা প্রদর্শনী শুরু হয়েছে। তবে সিনেমা মুক্তির জন্য কিছু নিয়ম মানতে হয়। যৌনতা কিংবা সমকামিতা স্পর্শ করে এমন দৃশ্য থাকলে সে সিনেমা দেশটির হলে মুক্তি পায় না। সিনেমা প্রদর্শনী শুরু হওয়ার পর থেকে দিনে দিনে সৌদি আরবের সিনেমার বাজার বড়ই হচ্ছে। বর্তমানে দেশটিতে ১৫৪টি সিনেমা হল চালু রয়েছে। সিনেমা হলগুলোতে সর্বমোট ৫০০ স্ক্রিনে সিনেমা প্রদর্শনী হয়। সৌদি আরবে ১৯৭০ সালের পর দেশটির ইসলামিক নেতারা সিনেমা হলগুলো বন্ধ করে দেন। এর পর ৩৫ বছর ধরে সেখানে কোনো সিনেমা হল ছিল না। ২০১৮ সালে সিনেমা হলের ওপর নিষেধাজ্ঞা তুলে নেওয়ার সিদ্ধান্ত নেয় দেশটির রাজপরিবার।

মন্তব্যসমূহ (০)