ধর্ষণ মামলায় কারাগারে ইউপি চেয়ারম্যান

আবারো কারাগারে গেলেন রাঙামাটির বরকল উপজেলার ভুষণছড়া ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) চেয়ারম্যান মামুনুর রশিদ ওরফে মামুন। তবে এবার তাকে কারাগারে যেতে হলো ধর্ষণ মামলায়।

মঙ্গলবার রাঙামাটির আদালতে নারী ও শিশু নির্যাতন ট্রাইব্যুনালে জামিন চেয়ে আবেদন করতে গেলে জামিন নামঞ্জুর করে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দিয়েছেন জেলা ও দায়রা জজ মো: নুরুল ইসলাম।

এর আগে এক বন মামলায় গত বছর ৯ অক্টোবর গ্রেফতার হয়ে কারাগারে যেতে হয়েছিল তাকে। পরে তদবিরে ওই বন মামলায় জামিন পান তিনি। আদালত সূত্রে এসব তথ্য জানা যায়।

মামলা সূত্রে জানা যায়, ধর্ষণের অভিযোগে গত বছর ২৪ জুন বরকল থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে ভুষণছড়া ইউপি চেয়ারম্যান মামুনের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেছেন ধর্ষিতার বাবা মো: নাছির উদ্দিন হাওলাদার। মামলার পর গ্রেফতার এড়াতে এলাকা ছেড়ে পালিয়ে যান আসামি মামুন। মামলাটির অভিযোগ গঠন হয় রাঙামাটির আদালতে নারী ও শিশু নির্যাতন ট্রাইব্যুনালে।

মামলা সূত্রে আরো জানা যায়, পরে উচ্চ আদালত থেকে জামিন নিয়ে আসেন তিনি। এরপর মামলায় গত বছর ২১ অক্টোবর রাঙামাটির আদালতে হাজিরার আদেশ ছিল। কিন্তু আদালতে আর হাজির হননি। মঙ্গলবার জামিন চেয়ে আদালতে আবেদন করতে গেলে তার জামিন নামঞ্জুর করেন আদালত। তাৎক্ষণিক আদালত থেকে গ্রেফতার করে তাকে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেয়া হয়।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, ওই ইউপি চেয়ারম্যান মামুনের বিরুদ্ধে ধর্ষণ মামলা ছাড়াও মারামারি, দুর্নীতি, বন মামলাসহ অনেক অভিযোগ রয়েছে। এসব অভিযোগের সত্যতা পাওয়ায় গত বছর ৫ জুলাই তাকে দল থেকে বহিষ্কার করা হয়। এর আগে বরকল উপজেলা যুবলীগের সভাপতি ছিলেন মামুন।

মামলার বাদি ও একই ইউনিয়নের ছোটহরিণার বাসিন্দা মো: নাছির উদ্দিন হাওলাদার বলেন, ‘বিয়ে ও চাকরির প্রলোভনে মামুন চেয়ারম্যান আমার মেয়ের (২০) সর্বনাশ করেছে। তার উপযুক্ত বিচারের জন্য সর্বশেষ নিজেই বরকল থানায় ধর্ষণের অভিযোগে মামুনের বিরুদ্ধে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলা দায়ের করেছি।’

মন্তব্যসমূহ (০)


Lost Password


মন্তব্য করতে নিবন্ধন করুন