যে ৪ কারণে গোসল ফরজ হয়

গোসলের ফরজ অবশ্য পালনীয় কাজ হলো তিনটি ( কুলি করা, নাকে পানি দেয়া ও সারা শরীরে পানি পৌঁছানো) । এ তিনটি কাজ যথাযথভাবে পালন না করলে ফরজ গোসল আদায় হয় না। তবে ইসলামী শরিয়ত মতে সব গোসলের বিধান সব সময় এক নয়। তা কখনো ফরজ, কখনো সুন্নত আর কখনো নফল বা মুস্তাহাব।

ফরজ গোসল ইসলামী জীবন বিধানের গুরুত্বপূর্ণ একটি বিষয়। কারো ওপর গোসল ফরজ হলে সঠিক পদ্ধতিতে গোসল আদায় না করা পর্যন্ত ওই ব্যক্তি নাপাক থাকে। আর নাপাক অবস্থায় নামাজ পড়লে সওয়াবতো হবেই না বরং কঠিন শাস্তির মুখোমুখি হতে হবে। চারটি কারণের যে কোন একটি ঘটলে গোসল ফরজ হয়ে যায়। যেমন:

১। জুনুবি অর্থাৎ কামনা পূরণের পর গোসল ফরজ হয়। যেমন—সহবাস, স্বপ্নদোষ বা যেকোনো উপায়ে বীর্যপাত হলে। (সুরা : মায়িদা, আয়াত : ৬)

২। নারীদের মাসিক রক্তস্রাব বন্ধ হওয়ার পর পবিত্র হওয়ার জন্য গোসল ফরজ হয়। (বুখারি, হাদিস : ৩০৯)

৩। মহিলাদের নেফাস বন্ধ হওয়ার পর গোসল ফরজ হয়। (কানজুল উম্মাল : ৯/১১০৯)

৪। মৃত ব্যক্তিকে গোসল দেওয়া জীবিতদের ওপর ফরজ। (বুখারি, হাদিস : ১১৭৫)

মহান আল্লাহ তা’আলা ইরশাদ করেন, ‘তোমরা যদি নাপাক (জানাবাত) অবস্থায় থাকো, তবে নিজেদের দেহ (গোসলের মাধ্যমে) ভালোভাবে পবিত্র করে নাও।’ (সুরা মায়েদা ৬)

মন্তব্যসমূহ (০)


Lost Password


মন্তব্য করতে নিবন্ধন করুন