আমি আমার বউকে ফেরত চাই

স্ত্রীকে আটকে রেখেছে শ্বশুরবাড়ির লোকজন। এই অভিযোগে শ্বশুরবাড়ির সামনে প্ল্যাকার্ড হাতে বসলেন ভারতের মুর্শিদাবাদের সামশেরগঞ্জের যুবক। স্ত্রীকে ফেরত না পাওয়া পর্যন্ত নিজের অবস্থানে অনড় থাকবেন বলেই জানিয়েছেন তিনি। এই যুবকের নাম কাফি শেখ।

বছর চারেক আগে সামশেরগঞ্জের দেবিদাসপুরের মরিয়ম খাতুনের সঙ্গে প্রণয়ের সম্পর্ক তৈরি হয় তার। পরবর্তীতে দুই পরিবারই জেনে যায় তাদের সম্পর্কের কথা। এরপরই সমস্যার শুরু। কাফির সঙ্গে সম্পর্ক কোনোদিনই মেনে নেয়নি মরিয়মের পরিবার। পরবর্তীতে প্রেমের টানে ঘর ছাড়ে যুগল। কিন্তু প্রথম দুবার লাভের লাভ কিছুই হয়নি। পালালেও শেষ অবধি মেয়েকে ফিরিয়ে আনে মরিয়মের পরিবার। এরপর বছর খানেক আগে পালিয়ে বিয়ে করে ওই যুগল। শুরু করে সংসার। স্বাভাবিক ছন্দেই চলছিল সবকিছু। বিয়ের মাস সাতেক পর বেকার জামাইয়ের সংসার থেকে মেয়েকে নিয়ে আসে মরিয়মের মা। অভিযোগ, এরপর আর তাকে স্বামীর সংসারে ফিরতে দেয়নি পরিবার। কাফি বিভিন্নভাবে চেষ্টা করলেও লাভের লাভ কিছুই হয়নি।

এরপরই বুধবার সকালে পোস্টার হাতে শ্বশুরবাড়ির সামনে বসেন কাফি, যা নিয়ে রীতিমতো চাঞ্চল্য ছড়িয়ে পড়ে এলাকায়। যুবকের দাবি, অবিলম্বে তার স্ত্রীকে ফিরিয়ে দিতে হবে। তার কথায়, ‘তৃতীয়বার পালিয়ে বিয়ে করতে সক্ষম হই। সংসারও ভালোই চলছিল। মরিয়াম আমার সঙ্গেই থাকতে চায়, পরিবার ওকে জোর করে আটকে রেখেছে।’ 

এ বিষয়ে মরিয়ম বা তার পরিবারের কোনও প্রতিক্রিয়া মেলেনি। উল্লেখ্য, হারানো ভালবাসা ফিরে পেতে প্রথমে ধরনার পথে হেঁটেছিল ধূপগুড়ির অনন্ত। জয়ীও হয়েছিল। তারপর একে একে অনেকেই তার পথে হেঁটেছেন। তবে সকলে সফল হননি। কী রয়েছে কাফির ভাগ্যে? সে দিকেই তাকিয়ে তার পরিবার।

মন্তব্যসমূহ (০)


Lost Password


মন্তব্য করতে নিবন্ধন করুন