হারিয়েই গেলো দেশের প্রথম মোবাইল ফোন সিটিসেল

মাগুরা জেলার  মহম্মদপুর উপজেলা নয় দক্ষিণ এশিয়ার প্রথম মোবাইল ফোন কোম্পানী সিটিসেল এখন আর নেই। প্রথম মোবাইল ফোন দেখা কথা বলার নানা স্মৃতি নিয়ে বহু মানুষের হৃদয়ে আজও বেচে আছে সিটিসেল।

মহম্মদপুর উপজেলা সদরের কলেজ রোডের বিশিষ্ট ব্যবসায়ী নিজাম উদ্দিন সাহেবের বাসভবনের ছাদের উপর স্বাক্ষী হয়ে দাঁড়িয়ে আছে বন্ধ হয়ে থাকা সিটিসেল টাওয়ার।

দেশের সবচেয়ে পুরোনো মুঠোফোন অপারেটর সিটিসেল বন্ধ হয়ে গেছে। প্রায় ৫০০ কোটি টাকার বকেয়া পরিশোধ করতে না পারায় বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশন (বিটিআরসি) সিটিসেলের কার্যক্রম বন্ধ করে দিয়েছে।

১৯৮৯ সালে বাংলাদেশের প্রথম মুঠোফোন অপারেটর হিসেবে টেলিযোগাযোগ সেবার লাইসেন্স পায় সিটিসেল। তবে প্রতিষ্ঠানটি সেবা দিতে শুরু করে ১৯৯৩ সাল থেকে। যাত্রার সময় এটি ছিল দক্ষিণ এশিয়ার প্রথম মুঠোফোন অপারেটর। প্রথম থেকেই সিটিসেল বাংলাদেশের একমাত্র সিডিএমএ (কোড ডিভিশন মাল্টিপল অ্যাকসেস) মোবাইল অপারেটর হিসেবে সেবা দিয়ে যাচ্ছিল।

সিটিসেলে বর্তমানে ৫৫ ভাগ শেয়ারের মালিক দেশীয় শিল্পগোষ্ঠী প্যাসিফিক মোটরস ও ফার ইস্ট টেলিকম। এর মধ্যে বাকি ৪৪ দশমিক ৫৪ শতাংশ শেয়ারের মালিক সিঙ্গাপুরভিত্তিক টেলিযোগাযোগ সেবাদাতা প্রতিষ্ঠান সিংটেল। প্যাসিফিক মোটরস ও ফার ইস্ট টেলিকমের কর্ণধার সাবেক পররাষ্ট্রমন্ত্রী ও বিএনপি নেতা মোর্শেদ খান।

অনেক স্মৃতির প্রথম মোবাইল ফোন সিটিসেল বন্ধ।  টাওয়ারগুলো ঠায় দাঁড়িয়ে আছে। নেটওয়ার্কের তরঙ্গে এখন আর প্রিয় জনের সুখ দুঃখের বার্তা ভেসে আসেনা। অধিকাংশ বাড়ির ছাদে বসানো টাওয়ারগুলো নিয়ে বিপাকে আছেন মালিকেরা।

মন্তব্যসমূহ (০)


Lost Password