মেসির জোড়া গোলে ভ্যালেন্সিয়াকে হারালো বার্সেলোনা

আর মাত্র চার রাউন্ড বাকি স্প্যানিশ লা লিগার। তবে এখনও বলা যাচ্ছে না কার ঘরে এবারের লা লিগার শিরোপা উঠবে? রিয়াল মাদ্রিদ, বার্সেলোনা সহ শিরোপার দাবিদার চারটি দল। শেষ চার রাউন্ড বাকি থাকতে এমন একটা সমীকরন দাড়িয়েছে নিজেদের কোন ম্যাচ হারা যাবেনা। হারলেই শিরোপা হাতছাড়া হয়ে যাবে। এমন পরিস্থীতির মাঝেই গতরাতে শক্তিশালী ভ্যালেন্সিয়ার বিপক্ষে  মেস্তায়া স্টেডিয়ামে নেমেছিল বার্সেলোনা। তুমুল প্রতিদ্বন্দিতাপুর্ণ ম্যাচে লিওনেল মেসির জোড়া গোলে ৩-২ ব্যাবধানে জয় নিয়ে শিরোপার দাবি টিকিয়ে রাখলো বার্সেলোনা।

ভ্যালেন্সিয়ার বিপক্ষে প্রথমার্ধে কোনো গোলের দেখা পায়নি দুদল। ভ্যালেন্সিয়ার ঘরের মাঠে হওয়া ম্যাচটিতে পাঁচটি গোলই হয়েছে দ্বিতীয়ার্ধে। তবে সুযোগ কাজে লাগাতে পারলে প্রথমার্ধে এগিয়ে যেতে পারতো দুদল। ম্যাচের শুরুতেই ফ্রেংকি ডি ইয়ংয়ের ছোট পাস ডি-বক্সে ফাঁকায় পেয়ে লক্ষ্যভ্রষ্ট শট নেন তরুণ মিডফিল্ডার পেদ্রি। ১০ মিনিট পর মেসির দারুণ ফ্রি কিকে ফ্লিক করেন রোনালদ আরাহো, বল যায় গোলরক্ষক বরাবর। ২৬তম মিনিটে ভ্যালেন্সিয়া প্রথম বার্সা গোলরক্ষক টের স্টেগেনের পরীক্ষা নেয়। ডি-বক্সের বাইরে থেকে মিডফিল্ডার উরোস রাসিচের নিচু শট যদিও মার্ক-আন্ড্রে টের স্টেগেনকে তেমন ভাবাতে পারেনি।

দ্বিতীয়ার্ধে ফিরে ৫০ মিনিটের সময় ম্যাচের প্রথম গোলটি করেন ভ্যালেন্সিয়ার গ্যাব্রিয়েল পাউলিস্তা। সাত মিনিট পর এক ঘটনাবহুল গোলে সমতা টানেন মেসি। ভ্যালেন্সিয়ার ডি-বক্সে ডিফেন্ডার তনি লাতো ইচ্ছাকৃতভাবে হাত দিয়ে মেসির ক্রস ঠেকানোয় পেনাল্টির বাঁশি বাজান রেফারি। বার্সেলোনা অধিনায়কের দুর্বল স্পট কিক অবশ্য ঠেকিয়ে দেন ইয়াসপের সিলেসেন। কিন্তু গোলরক্ষকের হাত ফসকে বেরিয়ে যাওয়া বল বামদিক থেকে আবার পেয়ে যান মেসি। এরপর বল জালে জড়াতে ভুল করেননি তিনি। ৬৩তম মিনিটে এগিয়ে যায় তিন দিন আগে গ্রানাদার বিপক্ষে ঘরের মাঠে হারা বার্সেলোনা। জর্দি আলবার ক্রসে ডি ইয়ংয়ের হেড রুখে দিয়েছিলেন সিলেসেন; কিন্তু বিপদমুক্ত করতে পারেননি সাবেক বার্সেলোনা গোলরক্ষক। ছুটে গিয়ে বিনা বাধায় লক্ষ্যভেদ করেন গ্রিজমান। স্কোরলাইনের ব্যবধান আরও বাড়ে ম্যাচের ৬৯ মিনিটের সময়। ডি-বক্সের খানিক বাইরে প্রায় ২০ গজ দূর থেকে দর্শনীয় এক ফ্রি-কিকে ভ্যালেন্সিয়ার রক্ষণকে বোকা বানান মেসি। স্কোর লাইন হয় ৩-০। চলতি লিগে মেসির এটি ২৮তম গোল। পাশাপাশি রয়েছে ৯টি এসিস্ট। এরপর অনেকটা সময় একটানা চাপ ধরে রাখে বার্সেলোনা। এর মাঝে আচমকা ব্যবধান কমায় ভালেন্সিয়া। ৮৩তম মিনিটে প্রায় ৩৫ গজ দূর থেকে হঠাৎ বুলেট গতির শটে গোলটি করেন সলের। এই গোলের পর ম্যাচে উত্তেজনা সৃষ্টি হলে শেষ পর্যন্ত আর হার এড়াতে পারেনি ভ্যালেন্সিয়া।

এই জয়ের পর লা লিগায় ৩৪ ম্যাচ থেকে বার্সেলোনার সংগ্রহ ৭৪ পয়েন্ট। তারা রয়েছে পয়েন্ট টেবিলের তৃতীয় স্থানে। সমান ম্যাচ থেকে সমান পয়েন্ট নিয়ে রিয়াল মাদ্রিদ আছে দ্বিতীয় স্থানে। আর ৭৬ পয়েন্ট নিয়ে অ্যাটলেটিকো মাদ্রিদ আছে শীর্ষে।

মন্তব্যসমূহ (০)


Lost Password


মন্তব্য করতে নিবন্ধন করুন