নিউজিল্যান্ডে এবার ইতিহাস বদলে দেবে বাংলাদেশ!

ইতিহাস জানাচ্ছে, নিউজিল্যান্ডের মাটিতে কোন ফরম্যাটে কখনো কিউইদের সাথে পেরে ওঠেনি টাইগাররা। ১৩টি ওয়ানডে, ৪টি টি-টোয়েন্টি এবং ৯টি টেস্টসহ মোট ২৬টি ম্যাচের একটিতেও জয় নেই টিম বাংলাদেশের।

এবার তিন ম্যাচের ওয়ানডে ও টি-টোয়েন্টি সিরিজে ইতিহাসের সেই ধারা অব্যাহত থাকবে, নাকি তামিম ও রিয়াদের দল সাফল্যের নতুন ইতিহাস রচনা করবে? সেটাই দেখার।

বলার অপেক্ষা রাখে না, নিউজিল্যান্ড নিজ মাটিতে বরাবর কঠিন প্রতিপক্ষ। ব্ল্যাক ক্যাপ্সরা ঘরের মাঠে সত্যিকারের বাঘ। তাদের মাটিতে গিয়ে তাদের সাথে পেরে ওঠা কঠিন। সেটা যে শুধুই নিউজিল্যান্ডের ক্রিকেটাররা নিজ মাটিতে দুরন্ত-দুর্বার, তা নয়। হ্যাঁ, এটা ঠিক যে নিউজিল্যান্ডের উইকেট, মাঠের আকার (বেশিরভাগ মাঠই ওভাল শেপের, পাশে কম সামনে বেশি) আয়তনটা ভিনদেশি দলগুলোর জন্য একটু প্রতিকুল। কিউইরা সেই পিচ ও মাঠে ভাল খেলে।

সে সাথে নিউজিল্যান্ডের কন্ডিশনটাও কিউইদের পক্ষে। প্রায় সারা বছরই প্রচণ্ড ঠান্ডা। কনকনে বাতাস বয়। বল বাতাসেই ম্যুভ করে। সেখানে কিউই ফাস্ট বোলিং মোকাবিলা সত্যিই কঠিন। সে কারণেই হোম কন্ডিশনে নিউজিল্যান্ডকে কঠিনতম প্রতিপক্ষ বলেই ধরা হয়।

সেই দেশে খেলতে যাবার আগে কি ভাবছেন তামিম ইকবাল ও মাহমুদউল্লাহ রিয়াদরা? নিউজিল্যান্ডের মাটিতে ব্ল্যাক ক্যাপ্সদের হারানো যাবে কি? আজ মঙ্গলবার বিকেলে দেশ ছাড়ার আগে ওয়ানডে অধিনায়ক তামিম ইকবালের কথা-বার্তা শুনে মনে হল, টিম বাংলাদেশ এবার ইতিহাস বদলের কথাই ভাবছে।

ওয়ানডে অধিনায়ক তামিম আশাবাদী। তবে আকাশ কুসুম কল্পনা নেই তার ভেতরে। টাইগার ওয়ানডে ক্যাপ্টেনের অনুভব, নিউজিল্যান্ডের কন্ডিশনে কিউইদের হারানো কঠিন। তবে অসম্ভব নয়।

তাইতো মুখে এমন কথা, ‘দেখুন! আমরা সবাই জানি যে, নিউজিল্যান্ড কন্ডিশন আমাদের জন্য কঠিন। কিন্তু অসম্ভব কিছুই না। আমরা চেষ্টা করব, যে জিনিসটা নিউজিল্যান্ডে কোনোদিন অর্জন করিনি, এবার সেটা যেন অর্জন করতে পারি। আমরা আশাবাদী।’

তামিমের দাবি, ক্রিকেটাররা সবাই প্রস্তুত ভাল কিছু করতে, ‘অবশ্যই ভালো কিছু হবে। সবাই যেভাবে মানসিক ও ক্রিকেটীয় প্রস্তুতি নিয়েছে, আশাকরি সবাই ভালোই করবে।’

আগে কখনো জিততে না পারার ধারা থেকে বেরিয়ে এসে প্রথমবার জয়ের স্বাদ পেতে উন্মুখ তামিম, ‘অবশ্যই, এবার যেন আমরা সেটা ভাঙ্গতে পারি, জিতে ফিরতে পারি।’

ওয়েস্ট ইন্ডিজের সাথে ওয়ানডে সিরিজ জয়ের অনুপ্রেরণা টেনে আনলেন তামিম। তিনি বলেন, ‘ওয়ানডেতে সবাই ভালো করেছে। সেখানেও আমাদের ওয়ানডে সিরিজ আছে। আশা করি ভালো করবে।’

তামিম মানছেন নিউজিল্যান্ডের কন্ডিশন কঠিন এবং সিরিজটা মোটেই সহজ হবে না, ‘কঠিন সফর। খুবই চ্যালেঞ্জিং একটা সিরিজ। এটাতে কোনো বিতর্ক নেই।’

সে কঠিন ও চ্যালেঞ্জিং মিশন জয় করতে তার দল কতটা প্রস্তুত? তামিমের আশাবাদী উচ্চারণ, ‘ছেলেদের দেখে মনে হয়েছে, ওরা প্রস্তুত। আমাদের যেমন করেই হোক, লড়াই করে আসতে হবে। আমাদের সিরিজটা ভালো খেলতেই হবে।’

মন্তব্যসমূহ (০)


Lost Password


মন্তব্য করতে নিবন্ধন করুন