শারীরিক অবস্থা স্থিতিশীল থাকলেও কারও সহযোগিতা ছাড়া হাঁটতে পারছেন না বেগম খালেদা জিয়া

মেডিকেল বোর্ডের পরামর্শক্রমে বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার স্বাস্থ্য পরীক্ষা হচ্ছে। আজ শুক্রবারও তাঁর রক্তের পরীক্ষা হয়েছে। চিকিৎসকেরাও তাঁকে নিয়মিত দেখেছেন। তাঁর শারীরিক অবস্থা অনেকটা স্থিতিশীল আছে। তবে এখনো কারও সহযোগিতা ছাড়া তিনি হাঁটতে পারছেন না। এমনটাই জানিয়েছেন খালেদা জিয়ার ব্যক্তিগত চিকিৎসক দলের অন্যতম সদস্য ডা. এ জেড এম জাহিদ হোসেন।

খালেদা জিয়ার স্বাস্থ্যের সর্বশেষ অবস্থা জানতে চাইলে আজ বিকেলে মুঠোফোনে জাহিদ হোসেন গণমাধ্যমকে বলেন, খালেদা জিয়ার শারীরিক অবস্থা অনেকটা স্থিতিশীল, অনেকটাই ভালো। যদিও ওনার পরীক্ষা-নিরীক্ষা চলছে। আজও ডাক্তাররা তাঁকে দেখেছেন। কালও কিছু পরীক্ষা হবে। শুক্র ও শনিবার সাপ্তাহিক ছুটি থাকার কারণে স্বাস্থ্য পরীক্ষার অগ্রগতি কিছুটা পিছিয়ে গেছে বলেও জানান তিনি।  

চিকিৎসকেরা পরীক্ষা-নিরীক্ষার পর নতুন কিছু পরীক্ষার পরামর্শ দিয়েছেন জানিয়ে এই চিকিৎসক বলেন, সব মিলিয়ে নতুন কিছু বলার মতো অবস্থায় নেই। তবে এখনো খালেদা জিয়া নিজে নিজে হাঁটতে পারেন না। হাঁটতে হলে তাঁর কারও না কারও সহযোগিতা লাগছে। ব্যক্তিগত দৈনন্দিন কাজেও তাঁর সাহায্যের প্রয়োজন হচ্ছে বলেও জানান জাহিদ হোসেন।

এই চিকিৎসক আরও জানান, হাসপাতালের ভর্তির পর গঠিত মেডিকেল বোর্ড প্রতিদিন খালেদা জিয়ার আপডেট নিচ্ছে, নতুন কিছু করতে বলছেন। সেভাবেই হাসপাতালে তাঁর চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে। সব পরীক্ষা শেষ হতে আরও দুই থেকে তিন দিন লাগতে পারে জানিয়ে জাহিদ হোসেন বলেন, এখন পর্যন্ত প্রয়োজনীয় পরীক্ষা চলছে। পরবর্তী সময়ে চিকিৎসকেরা যখন যাওয়ার জন্য বলবেন, তখন তিনি বাসায় ফিরবেন।

স্বাস্থ্য পরীক্ষার জন্য গত মঙ্গলবার রাত ১০টার দিকে এভারকেয়ার হাসপাতালে নেওয়া হয়েছিল খালেদা জিয়াকে। কিছু পরীক্ষার পর রাত ১২টার দিকে তাঁকে হাসপাতালে ভর্তি করে নেওয়া হয়। হাসপাতালে ভর্তি খালেদা জিয়ার চিকিৎসার জন্য ১০ সদস্যের মেডিকেল বোর্ড গঠন করা হয়েছে। ওই মেডিকেল বোর্ডের পরামর্শেই এভারকেয়ার হাসপাতালে খালেদা জিয়ার চিকিৎসা চলছে।

১১ এপ্রিল খালেদা জিয়ার করোনাভাইরাস আক্রান্ত হওয়ার কথা জানায় বিএনপি। পরদিন খালেদা জিয়ার ব্যক্তিগত চিকিৎসকেরা সাংবাদিকদের জানান, গুলশানের বাসভবন ফিরোজায় আরও আটজন করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন।

২৫ এপ্রিল দ্বিতীয়বার খালেদা জিয়ার করোনা পরীক্ষার নমুনা জমা দেওয়ার পর আবারও পজিটিভ আসে। বর্তমানে তিনি রাজধানীর এভারকেয়ার হাসপাতালে চিকিৎসা নিচ্ছেন। তাঁর চিকিৎসকেরা জানিয়েছেন, নিয়মিত স্বাস্থ্য পরীক্ষার অংশ হিসেবে হাসপাতালে ভর্তি খালেদা জিয়াকে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে।

এদিকে দ্বিতীয় দফায় করোনা নেগেটিভ না এলেও এভারকেয়ার হাসপাতালে নন-কোভিড জোনে খালেদা জিয়াকে রাখা হয়েছে। এ প্রসঙ্গে তাঁর চিকিৎসকেরা বলছেন, করোনায় আক্রান্ত হওয়ার পর ইতিমধ্যে খালেদা জিয়ার দুই সপ্তাহ পার হয়েছে। বর্তমানে তাঁর করোনার কোনো উপসর্গ নেই। তাই নন-কোভিড জোনে তাঁর চিকিৎসা চলছে।

মন্তব্যসমূহ (০)


Lost Password


মন্তব্য করতে নিবন্ধন করুন