গৃহকর্মী সীমা হত্যা মামলার আসামি ফরিদপুরে গ্রেফতার

রাজশাহীর বাঘায় গৃহকর্মী রিপায়ারা আক্তার সীমা হত্যা মামলায় বজলুর রহমান নামে এক আসামিকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। মঙ্গলবার রাতে ফরিদপুর সদরের বাখুনদিয়া বাজার থেকে তাকে গ্রেফতার করা হয়।গ্রেফতারকৃত বজলুর রহমান বাঘা উপজেলার বরাখাদিয়া গ্রামের বিচ্ছাদ ফকিরের ছেলে।

মামলার তদন্ত কর্মকর্তা এসআই তৈয়ব উদ্দীন জানান, তথ্যপ্রযুক্তির সহায়তায় মোবাইল ট্র্যাকিংয়ের মাধ্যমে আসামি বজলুর রহমানকে গ্রেফতার করা হয়েছে। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদ ও জবানবন্দিতে রিপায়ারা আক্তার সিমাকে হত্যার দায় স্বীকার করেছেন তিনি। এছাড়া হত্যাকাণ্ড সম্পর্কে আরো চাঞ্চল্যকর তথ্য দিয়েছেন। তদন্তের স্বার্থে সেসব তথ্য গোপন রাখা হচ্ছে।

চারঘাট সার্কেলের সহকারী পুলিশ সুপার নূরে আলম জানান, নিহত রিপায়ারা আক্তার সীমা একই উপজেলার বাজুবাঘা ইউনিয়নের আরিফপুর দেওয়ান পাড়ার আতব আলী সরকারের মেয়ে। চার বছর আগে সড়ক দুর্ঘটনায় তার স্বামীর মৃত্যু হয়। এরপর একই উপজেলার আড়পাড়ার জুয়েলের সঙ্গে তার দ্বিতীয় বিয়ে হয়। এরপর উপজেলা সদরের একটি বাড়িতে গৃহকর্মীর কাজ নেন সীমা। কাজের সুবিধার জন্য পাশেই একটি বাসা ভাড়া নিয়ে একাই বসবাস করতেন। তার দুটি ছেলে রয়েছে। তারা নানাবাড়িতে থাকে। ছেলেদের দেখতে মাঝেমধ্যে বাবার বাড়িতে যেতেন সীমা।

তিনি আরো জানান, ঘটনার দিন বিকেলে বাবার বাড়ি যাওয়ার উদ্দেশ্যে বের হয়েছিলেন। ওই রাতে তাকে পরিকল্পিতভাবে হত্যা করা হয়। পরদিন সকালে আরিফপুরের একটি আম বাগান থেকে সীমার লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। ওই ঘটনায় নিহতের ভাই ভাই আশরাফুল ইসলাম অজ্ঞাতদের আসামি করে মামলা করেন। ১৫ দিনের মাথায় হত্যাকাণ্ডের সঙ্গে জড়িত বজলুর রহমানকে গ্রেফতার করা হয়েছে। বাকি আসামিদের শিগগিরই আইনের আওতায় আনা হবে।

 

মন্তব্যসমূহ (০)


Lost Password


মন্তব্য করতে নিবন্ধন করুন