আলোচনায় বসতে চায় যুক্তরাষ্ট্র, প্রস্তাব প্রত্যাখ্যান করল ইরান!

ইরানের সঙ্গে কোনো শর্ত ছাড়াই আলোচনার বিষয়টি প্রত্যাখ্যান করেছে জাতিসংঘে নিযুক্ত তেহরানের রাষ্ট্রদূত মজিদ তখত রাভানচি। তিনি যুক্তরাষ্ট্রের আহ্বানকে প্রত্যাখ্যান করে এটিকে নিষেধাজ্ঞার মধ্যে অবিশ্বাস্য বলেও উল্লেখ করেন।

বৃহস্পতিবার দেশটির রাষ্ট্রীয় সংবাদ সংস্থা ইরনার এক প্রতিবেদনে এ কথা জানানো হয়। তিনি বলেন, যুক্তরাষ্ট্র তেহরানের ওপর নিষেধাজ্ঞা চাপিয়ে দিয়ে প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প সহযোগিতার জন্য আহ্বান করেছেন এটা অবিশ্বাস্য।

জাতিসংঘের কাছে পাঠানো এক চিঠিতে ইরানের রাষ্ট্রদূত মাজিদ রাভানচি জানান, তিন জানুয়ারি ইরানি জেনারেল কাসেম সোলাইমানিকে হত্যার মধ্য দিয়ে যুক্তরাষ্ট্র নতুন ধারাবাহিক উত্তেজনা ও শত্রুতার সূচনা করেছে। তবে ইরান কোনও যুদ্ধ কিংবা উত্তেজনা বাড়াতে চায় না।

সেইসঙ্গে জাতিসংঘ সনদের ৫১ ধারা উল্লেখ করে মার্কিন ঘাঁটিতে হামলার যৌক্তিকতা তুলে ধরা হয়েছে ওই চিঠিতে।

এর আগে জাতিসংঘে দেয়া এক চিঠিতে ট্রাম্প প্রশাসন জানিয়েছিল, ইরানের সঙ্গে কোনও শর্ত ছাড়াই আলোচনা করতে প্রস্তুত রয়েছে।

জাতিসংঘ নিরাপত্তা পরিষদে দেয়া ওই চিঠিতে জাতিসংঘে নিযুক্ত মার্কিন রাষ্ট্রদূত কেলি ক্র্যাফট জানান, ইরানের দ্বারা আন্তর্জাতিক শান্তি ও নিরাপত্তা যাতে হুমকির মুখে না পড়ে এবং উত্তেজনা যাতে বৃদ্ধি না পায়, সেজন্য যুক্তরাষ্ট্র আলোচনা করতে প্রস্তুত। ওই চিঠিতে কাসেম সোলাইমানিকে হত্যার যুক্তি হিসেবে নিজেদের রক্ষা করার জন্যই এ কাজ করা হয়েছে বলেই জানিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র।

এর আগে সোলেমানি হত্যার জবাবে মঙ্গলবার (০৭ জানুয়ারি) ইরাকে মার্কিন দুই সামরিক ঘাঁটিতে একের পর এক ক্ষেপণাস্ত্র হামলা চালায় ইরান। যদিও এতে মার্কিন সৈন্যদের কোনো ক্ষতি হয়নি বলে দাবি ওয়াশিংটনের। কিন্তু ইরান বলছে, হামলায় যুক্তরাষ্ট্রের ৮০ সৈন্য নিহত হয়েছেন। আহত হয়েছেন ২০০ জন। তাদের ইসরায়েলের তেলআবিবের হাসপাতালে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে।

মন্তব্যসমূহ (০)


লগইন করুন


Remember me Lost your password?

Don't have account. Register

Lost Password


মন্তব্য করতে নিবন্ধন করুন