প্রেম করে বিয়ে, ১৮ মাসের মাথায় লাশ হলো সুরাইয়া

প্রেম করে বিয়ে, ১৮ মাসের মাথায় লাশ হলো সুরাইয়া

সুরাইয়া আক্তার নামে এক গার্মেন্টস কর্মীকে শ্বাসরোধে হত্যা করা হয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। ঘটনার পর থেকেই নিহতের স্বামী পলাতক রয়েছেন। বৃহস্পতিবার সকালে নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জ উপজেলার কাঞ্চন পৌরসভার কেন্দুয়া হালুয়ার টেক এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

নিহতের পরিবারের বরাত দিয়ে ভোলাব তদন্ত কেন্দ্রের এসআই বোরহান উদ্দিন জানান, দেড় বছর (১৮ মাস) পূর্বে গাজীপুরের কালীগঞ্জ থানাধীন দক্ষিণবাগ এলাকার আলমগীর হোসেনের মেয়েকে প্রেম করে বিয়ে করেন উপজেলার বিরাব এলাকার মৃত জালাল উদ্দিনের ছেলে অহিদ মিয়া। বিয়ের পর তারা উভয় স্থানীয় মাসকো গ্রুপের গার্মেন্টস সেকশনে চাকরি করে আসছিল। তারা একই এলাকায় জৈনক মনিরের বাড়ির ভাড়াটিয়া।

বৃহস্পতিবার সকালে স্থানীয়রা ঘরে সুরাইয়ার লাশ পড়ে থাকতে দেখে পুলিশকে খবর দেয়। পুলিশ লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য নারায়ণগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালে পাঠিয়েছে। উদ্ধার হওয়া লাশের গলায় ও শরীরে আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। বুধবার রাতের কোনো এক সময় সুরাইয়াকে শ্বাসরোধে হত্যা করা হয় বলে ধারণা করা হচ্ছে।

তবে ময়নাতদন্তের প্রতিবেদন পেলে প্রকৃত কারণ জানা যাবে। ঘটনার পর থেকে নিহতের স্বামী অহিদ মিয়া পলাতক রয়েছেন বলে এসআই জানিয়েছেন। এ ব্যাপারে রূপগঞ্জ থানার ওসি এএফএম সায়েদ জানান, লাশ উদ্ধার করে মর্গে পাঠানো হয়েছে। এ ঘটনায় রূপগঞ্জ থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করা হয়েছে।

মন্তব্যসমূহ (০)


Lost Password