রোহিঙ্গারা হতাশ হয়ে চরমপন্থি জঙ্গি রাজনীতির দিকে ঝুঁকছে

রোহিঙ্গারা হতাশ হয়ে চরমপন্থি জঙ্গি রাজনীতির দিকে ঝুঁকছে

সেনা অভিযানের মুখে পাঁচ বছর আগে মিয়ানমারের রাখাইন থেকে পালিয়ে বাংলাদেশে আশ্রয় নেওয়া রোহিঙ্গারা দিন দিন হতাশ হয়ে চরমপন্থি জঙ্গি রাজনীতির দিকে ঝুঁকছে। এ পরিস্থিতিতে বাংলাদেশ ও উপমহাদেশের সার্বিক নিরাপত্তার স্বার্থে এই জনগোষ্ঠীকে তাদের নিজ দেশ মিয়ানমারে পাঠানো জরুরি বলে মন্তব্য করেছেন বাংলাদেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রী একে আবুল মোমেন।

কিন্তু মিয়ানমারের তরফ থেকে এখন পর্যন্ত তেমন কোনো পদক্ষেপ না আসায় এ বিষয়ে মধ্যস্থতা করতে ভারতের সহযোগিতা চেয়েছেন বাংলাদেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রী। বাংলাদেশ ও ভারত- উভয় দেশের মধ্য দিয়ে বয়ে যাওয়া নদনদীবিষয়ক দ্বিপক্ষীয় জোট জয়েন্ট কনসালটেটিভ কমিশনের (জেসিসি) সম্মেলনে যোগ দিতে ভারতের আসামে গেছেন একে আবুল মোমেন।

রাজধানী গুয়াহাটি থেকে তিনি বলেন, মিয়ানমার থেকে বাস্তুচ্যুত বাংলাদেশে আশ্রিত ১১ লাখ রোহিঙ্গার কোনো ভবিষ্যৎ নেই; তারা রাষ্ট্রহীন ও হতাশ। নিজেদের এমন অবস্থানের কারণেই তারা জঙ্গিবাদী রাজনীতির দিকে ঝুঁকে পড়ছে। এতে ভারতসহ যেসব প্রতিবেশী দেশ রয়েছে, তাদের জন্যও হুমকি তৈরি হবে। ভারতের কাছে সহযোগিতা প্রত্যাশা করে একে মোমেন বলেন, ভারত জাতিসংঘের নিরাপত্তা পরিষদের সদস্য।

এ ছাড়া মিয়ানমারের বন্ধুরাষ্ট্র হওয়ার সুবাদে দেশটির ওপর প্রভাব বিস্তার করার ক্ষমতাও রয়েছে। এ কারণে ভারত ও আসিয়ান দেশগুলোর কাছে আমাদের আন্তরিক চাওয়া- এ ব্যাপারে যেন মিয়ানমারের ওপর চাপ দেওয়া হয়।

মন্তব্যসমূহ (০)