খিদে পেলেই বিস্কুট খাচ্ছেন, নিজের অজান্তেই ডেকে আনছেন মরাত্মক বিপদ

স্কুল-কলেজ পড়ুয়া থেকে শুরু করে কর্মরত- সকলেরই ব্যাগে বিস্কুট থাকে না এমনটা হতেই পারে না। অল্প খিদে হোক, বা মুখ চালানোর মতো খিদে হোক বিস্কুটই কিন্তু একমাত্র অব্যর্থ একটি উপাদান।কিন্তু খিদে পলেই যে বিস্কুট খান, কখনও ভেবে দেখেছেন এর পরিণাম কী হতে পারে।

একাধিক গবেষণায় দেখা গিয়েছে, যেকোনও বয়সের মানুষের শরীরেই কিন্তু বিস্কুট কোনও উপকার তো করেই না উল্টে এর প্রভাব যে কতখানি মারাত্মক হতে পারে সেকথাই একাধিক পত্র-পত্রিকায় প্রকাশ করেছেন বিজ্ঞানীরা। কিন্তু বর্তমানে চারিদিকে এত রকমের বিস্কুটের বিজ্ঞাপন, তা দেখে আপনার মনে হতেই পারে যে, দামী বিস্কুট খেলে হয়তো ভাল কাজ দেবে, কিন্তু বিষয়টা একেবারেই ভুল। বিস্কুট তৈরিতে যেসব উপদান ব্যবহার করা হয় সেগুলিই যে শরীরের পক্ষে ক্ষতিকারক সেকথা অনেকেই বোঝেন না। এক ঝলকে দেখে নেওয়া যাক, বিস্কুট থেকে কী কী ক্ষতি হতে পারে।

১) বাজার চলতি বেশিরভাগ বিস্কুটে যে রিফাইন্ড ময়দা ব্যবহার করা হয়, তা কিন্তু শরীরের পক্ষে একেবারেই ভাল নয়। এতে করে গ্যাসের সমস্য দেখা দিতে পারে। শুধু তাই নয়, রিফাইন্ড ময়দা রক্তে শর্করার মাত্রা বাড়িয়ে দিয়ে ডায়াবেটিসের মতো রোগের প্রাদুর্ভাব বাড়িয়ে দিতে পারে।

২) জানেন কি বিস্কুট খেলে শরীরে ক্যালোরির মাত্রা বৃদ্ধি পায়। যা কিন্তু পরোক্ষভাবে শরীরে অপ্রয়োজনীয় ফ্যাট বাড়িয়ে দিতে সাহায্য করে। তাই খিদে পেলে প্যাকেট খুলে বিস্কুট খাওয়ার অভ্যেস ত্যাগ করুন।

৩) সব রকমের বিস্কুটে কম-বেশি চিনি ব্যবহার করা হয়ে থাকে। আর অতিরিক্ত চিনি বা ক্রিম দেওয়া বিস্কুটের কথা তো ছেড়েই দিন। বড়রা তো বটেই পাশাপাশি ছোট বাচ্চাদের যদি ছোট থেকেই বিস্কুট খাওয়ার অভ্যাস ধরিয়ে দেন, তাহলে কিন্তু নিজের অজান্তেই ডেকে আনছেন সর্বনাশ।

মন্তব্যসমূহ (০)


Lost Password


মন্তব্য করতে নিবন্ধন করুন