ধোনিদের মরণ-বাঁচন ম্যাচে নজরে তাহির

আইপিএলে একাধিক বার চ্যাম্পিয়ন হয়েছে চেন্নাই সুপার কিংস ও মুম্বই ইন্ডিয়ান্স। আমিরশাহিতে এ বারের আইপিএল শুরু হয়েছিল সেই দুই দলের দ্বৈরথ দিয়েই।যে ম্যাচে চার বল বাকি থাকতেই পাঁচ উইকেটে জিতেছিল মহেন্দ্র সিংহ ধোনির নেতৃত্বাধীন সিএসকে। কিন্তু তার পরে বাকি নয় ম্যাচের মধ্যে মাত্র দু’টিতে জিতে ৬ পয়েন্ট নিয়ে লিগ তালিকায় সবার শেষে চেন্নাই। আর গত বারের চ্যাম্পিয়ন মুম্বই বাকি আট ম্যাচের মধ্যে ছ’টিতে জিতে ১২ পয়েন্ট নিয়ে স্বপ্ন দেখছে প্লে-অফে খেলার।

এই অবস্থায় শুক্রবার শারজায় ফের মুখোমুখি হচ্ছে এই দুই দল। বাকি চার ম্যাচের মধ্যে চারটিতেই জিতলে মহেন্দ্র সিংহ ধোনির দলের প্লে-অফে যাওয়ার সম্ভাবনা বাড়তে পারে। তাই শুক্রবার অগ্নিপরীক্ষার ম্যাচে জয়ের জন্য মরিয়া চেন্নাই। অন্য দিকে, ধোনিদের হারাতে পারলেই রোহিত শর্মার দলের প্রথম চারে থাকা অনেকটাই নিশ্চিত হয়ে যাবে। তাই হাড্ডাহাড্ডি লড়াইয়ের জন্য প্রহর গুণছে শারজা স্টেডিয়াম।

সিএসকে শিবিরে চোটের জন্য ছিটকে গিয়েছেন ডোয়েন ব্র্যাভো। গুরুত্বপূর্ণ এই ম্যাচে তাই খেলার সম্ভাবনা বাড়ছে দক্ষিণ আফ্রিকার স্পিনার ইমরান তাহিরের। গত বছর প্রতিযোগিতায় সব চেয়ে বেশি উইকেট পেয়েছিলেন তাহির। কিন্তু এ বছর একটিও ম্যাচে খেলেননি তিনি। যে প্রসঙ্গে তাহির ভারতীয় অফস্পিনার আর অশ্বিনের ইউটিউব চ্যানেলে একটি অনুষ্ঠানে  বলেছেন, ‘‘সিএসকে দলে চার জন বিদেশি ক্রিকেটার থিতু হয়ে গেলে পঞ্চম বিদেশি ক্রিকেটারের দলে সুযোগ পাওয়া কঠিন। এ বার মনে হচ্ছে, সুযোগ মিলতে পারে।’’ এ বছরে এখনও পর্যন্ত একটিও ম্যাচ না খেলা প্রসঙ্গে তাহিরের প্রতিক্রিয়া, ‘‘কেন সুযোগ পাইনি সে ব্যাপারে কোনও ধারণা নেই। অতীতে ফ্যাফ ডুপ্লেসির মতো ক্রিকেটারকেও গোটা মরসুম মাঠে পানীয় বহন করতে হয়েছে। সেটা এ বার আমি করছি। জানা আছে, সেই সময়ে ফ্যাফের মনের অবস্থা।’’

তবে চেন্নাই দলের প্রতি ভালবাসা অগাধ তাহিরের। বলেছেন, ‘‘আমার হৃদয়ের সেরা দল হল চেন্নাই। বিশ্বের বিভিন্ন প্রান্তে খেলেছি। কিন্তু কোথাও এতটা সম্মান পাইনি। সমর্থকেরাও হৃদয় দিয়ে ভালবাসেন।’’ শারজার মাঠ ছোট। সাম্প্রতিক কয়েকটি ম্যাচে দেখা গিয়েছে, বল পড়ে মন্থর হচ্ছে। যে প্রসঙ্গে মুম্বই ইন্ডিয়ান্সের লেগস্পিনার রাহুল চাহার আবার বলেছেন, মন্থর পিচ এবং ভারতের তুলনায় বড় মাঠ হওয়ায় ব্যাটসম্যানেদের আক্রমণ করতে পারছেন তিনি। মুম্বইয়ের হয়ে এ বার ন’ম্যাচে ১১ উইকেট পেয়েছেন চাহার। মুম্বইয়ের ওয়াংখেড়ে স্টেডিয়ামের সঙ্গে আমিরশাহির মাঠের তুলনা করা হলে চাহার বলেন, ‘‘যত সময় যাচ্ছে উইকেট মন্থর হচ্ছে। ফলে লেংথ নতুন করে ঠিক করতে হচ্ছে।’

মন্তব্যসমূহ (০)


লগইন করুন


Remember me Lost your password?

Don't have account. Register

Lost Password


মন্তব্য করতে নিবন্ধন করুন