চতুর্থ দিনশেষে পরাজয়ের অপেক্ষায় বাংলাদেশ

পাল্লেকেলে টেস্টের শেষদিনে জয়ের জন্য শ্রীলঙ্কার প্রয়োজন ৫ উইকেট অন্যদিকে বাংলাদেশকে করতে হবে আরও ২৬০ রান। দলের মুল ব্যাটসম্যানরা সবাই ফিরে গেছেন সাজঘরে। উইকেটে আছেন লিটন দাস ও মেহেদি হাসান মিরাজ। চতুর্থ দিনেই শ্রীলঙ্কার স্পিনাররা বাংলাদেশের ব্যাটসম্যানদের যেভাবে ভুগিয়েছে তাতে লিটন ও মিরাজ বোলারদের নিয়ে শেষদিনে শ্রীলঙ্কার জয়কে কতটা বিলম্ব করতে পারে সেটাই এখন দেখার বিষয়।

আজ চতুর্থ দিনের দ্বিতীয় সেশনে ইনিংস ঘোষণার আগে শ্রীলঙ্কা করেছে ৯ উইকেটে ১৯৪ রান। বাংলাদেশের সামনে টার্গেট দাঁড়ায় ৪৩৭ রানের। শ্রীলঙ্কার হয়ে সর্ব্বোচ্চ ৬৬ রান করেন অধিনায়ক করুণারাত্নে। ২৯ মাস পর বাংলাদেশের হয়ে ৫ উইকেট শিকার করেন স্পিনার তাইজুল ইসলাম। নিজেদের টেস্ট ইতিহাসে সর্বোচ্চ ২১৫ রান তাড়া করে জেতার রেকর্ড রয়েছে বাংলাদেশের। আর সাদা পোশাকের অভিজাত ক্রিকেটে রান তাড়া করে জেতার বিশ্বরেকর্ড ৪১৮ রানের। অর্থাৎ ম্যাচ জিততে ইতিহাসই গড়তে হবে বাংলাদেশকে।

৪৩৭ রানের বিশাল লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে চলতি সিরিজে চতুর্থবারের মতো প্রথম ওভারেই বাউন্ডারি হাঁকান তামিম। রমেশ মেন্ডিসের করা পরের ওভারেই হাঁকান ছক্কা। তার শরীরী ভাষায় স্পষ্ট ছিল আত্মবিশ্বাসের ছাপ। সুরঙ্গা লাকমলের করা সপ্তম ওভারের প্রথম দুই বলেই হাঁকান জোড়া বাউন্ডারি। আক্রমনাত্মক তামিমকে আজ বেশিক্ষন টিকতে দেননি রমেশ মেন্ডিস। তার করা অষ্টম ওভারের প্রথম বলে দারুণ টার্ন এন্ড বাউন্সে কট বিহাইন্ড হন ২৪ রান করা তামিম। কিছুক্ষন পর আউট হয়েও রিভিউ নিয়ে বেঁচে যান টেস্ট ক্রিকেটে ধুকতে থাকা আরেক ওপেনার সাইফ হাসান। সুযোগ পেয়ে হাত খুলে খেলতে থাকেন তিনি। কিন্তু বাজে শটে ইনিংস বেশি লম্বা করতে পারেননি সাইফ। জয়াবিক্রমার ঘূর্ণিতে ৩৪ রান করে তালুবন্দি হয়েছেন লাকমালের। এরপর মুমিনুল হকের সঙ্গে জুটি বেঁধে দলীয় শতরান পার করান নাজমুল শান্ত। তবে চা বিরতির ঠিক আগে ২৬ রানে জয়াবিক্রমের অসাধারণ এক ডেলিভারিতে সরাসরি বোল্ড হয়ে সাজঘরে ফিরে যান শান্ত।

বিরতির পর অধিনায়ক মুমিনুল প্রতিরোধ গড়ার চেষ্টা করেছিলেন যদিও। কিন্তু রামেশ মেন্ডিসের ঘূর্ণিতে তিনি বোল্ড হয়ে ফেরেন ৩২ রানে। কাট করতে গেলে এনসাইড এজ হয়ে বল আঘাত হানে স্টাম্পে। মুমিনুল ফিরে যাওয়ার পরই পরাজয়ের শঙ্কা ঝাঁকিয়ে বসে। এরপর ৬৩ বলে ৪০ রান করা মুশফিকও যখন সেই মেন্ডিসের বলে ধনঞ্জয়া ডি সিলভার হাতে ক্যাচ দিয়ে ফিরে যান, তখন পরাজয় প্রায় নিশ্চিত হয়ে পড়েছে। খেলা শেষ হবার আগে রিভিউ নিয়ে বেঁচে গেছেন মিরাজ। আলোক স্বল্পতার কারণে আজও ১২ ওভার আগেই খেলা বন্ধ হয়ে গেছে। খেলা পুরো সময় হলে বাংলাদেশের আরও উইকেট পরে গেলেও অবাক হওয়ার কিছু থাকতো না। দিনশেষে বাংলাদেশের সংগ্রহ ৫ উইকেটে ১৭৭ রান। লিটন ১৪ ও মিরাজ ৪ রান অপ্রাজিত আছেন। শ্রীলঙ্কার রমেশ মেন্ডিস ৮৬ রানে ৩ উইকেট শিকার করেছনে।

মন্তব্যসমূহ (০)


Lost Password


মন্তব্য করতে নিবন্ধন করুন