কবর থেকে নারীর লাশ চুরির চেষ্টা

গাজীপুরের কালিয়াকৈরে ময়নাতদন্তের ভয়ে কবর খুঁড়ে এক নারীর লাশ চুরির চেষ্টার অভিযোগ পাওয়া গেছে। আলামত নষ্ট করার জন্যই লাশ চুরির চেষ্টা করা হয় বলে পরিবারের দাবি।উপজেলার বেনুপুর এলাকায় শুক্রবার রাতে এ ঘটনা ঘটে।এলাকাবাসী ও পুলিশ সূত্রে জানা যায়, কালিয়াকৈরের আশাপুর এলাকার জসিম উদ্দিনের মেয়ে জুলেখা আক্তার শিখার (২৫) সঙ্গে ১০ বছর আগে ঢাকার ধামরাই থানার যাদবপুর এলাকার আতাউর মাস্টারের ছেলে মেহেদী হাসানের বিয়ে হয়। 

১১ সেপ্টম্বর শ্বশুরবাড়ি থেকে শিখার লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। ওইদিন শিখার বাবা বাদী হয়ে মেহেদী ও তার বাবা আতাউরসহ কয়েকজনকে আসামি করে থানায় মামলা দায়ের করেন।পরে পুলিশ ময়নাতদন্তের জন্য নিহতের লাশ শহীদ সোহরাওয়ার্দী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল মর্গে পাঠায়। ময়নাতদন্ত শেষে নিহতের লাশ আশাপুর-বেনুপুর কবরস্থানে দাফন করা হয়।

ময়নাতদন্তের রিপোর্ট পেয়ে নিহতের বাবা নারাজি দিয়ে ঢাকার চীফ জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে ফের ময়নাতদন্তের জন্য একটি আবেদন করেন। আদালত ৯ নভেম্বর একটি আদেশ প্রদান করেন। ওই আদেশে গাজীপুরের একজন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটের উপস্থিতিতে ১৫ কার্যদিবসের মধ্যে শিখার লাশ উত্তোলন করে ফের ময়নাতদন্তে প্রেরণের জন্য মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তাকে নিদের্শ প্রদান করা হয়।

আদেশের প্রেক্ষিতে কাল (রোববার) শিখার লাশটি উত্তোলন করা হবে। কিন্তু এর আগেই গত শুক্রবার রাতেকে বা কাহারা কবর খুঁড়ে শিখার লাশ উত্তোলনের চেষ্টা করে। টের পেয়ে নিহতের পরিবার কবরস্থানে যাওয়ার আগেই দুর্বৃত্তরা পালিয়ে যায়। তবে সেখানে দুর্বৃত্তরা কোদালসহ কবর খোঁড়ার সরঞ্জাম রেখে যায়।

নিহতের বাবা জসিম উদ্দিন বলেন, প্রতিরাতে আমরা কবরস্থানে পাহারা দেই। কিন্তু ওইদিন কবরস্থানে যেতে একটু দেরি হলে বিবাদী পক্ষ গুমের লক্ষ্যে করব খুঁড়ে আমার মেয়ের লাশ চুরির চেষ্টা করে।কালিয়াকৈর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মনোয়ার হোসেন চৌধুরী বলেন, কবর খুঁড়ে লাশ চুরির চেষ্টার খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠানো হয়েছে। তবে রোববার ধামরাই থানা পুলিশ লাশটি উত্তোলন করবে। আমাদের পুলিশ তাদের সহযোগিতা করবে।

মন্তব্যসমূহ (০)


লগইন করুন


Remember me Lost your password?

Don't have account. Register

Lost Password


মন্তব্য করতে নিবন্ধন করুন