ডিবির হাজতের বাথরুমে হারপিক পানে আত্মহত্যার চেষ্টা

রাজশাহীতে গোয়েন্দা পুলিশের (ডিবি) হেফাজতে এক আসামি হারপিক পান করে আত্মহত্যার চেষ্টা করেছেন বলে জানা গেছে। মঙ্গলবার দুপুরে নগরীতে লক্ষীপুরের মহানগর গোয়েন্দা পুলিশের কার্যালয়ে এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় আসামি মো. রবিন মিয়াকে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ (রামেক) হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

রামেক হাসপাতাল সূত্রে জানা গেছে, গত মঙ্গলবার দুপুরে রবিন মিয়া (২৩) মহানগর ডিবির হাজতের বাথরুমে হারপিক পানে আত্মহত্যার চেষ্টা করেন। বিষয়টি টের পেয়ে পুলিশ তাকে দ্রুত রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের জরুরি বিভাগে নেন। সেখান থেকে তাকে একটি ওয়ার্ডে ভর্তি করা হয়।

জানা গেছে, মো. রবিন মিয়ার বাবার নাম মৃত গোলাম মোস্তফা। নগরীর বোয়ালিয়া থানার সাধুর মোড় এলাকায় তার বাড়ি। সোমবার রাতে তাকে শনিবারের ছিনতাই ঘটনার সন্দেহভাজন হিসেবে আটক করে পুলিশ।

মহানগর ডিবির উপ-কমিশনার (ডিসি) আবু আহাম্মদ আল মামুন জানান, গত শনিবার নগরীর মহিষবাথান এলাকায় একটি ছিনতাইয়ের ঘটনা ঘটে। তিন-চারজন ছিনতাইকারী ছুরি ধরে রওশন আরা বেগম নামে এক নারী ও তার ছেলের কাছ থেকে একটি স্মার্টফোন এবং নগদ সাড়ে পাঁচ হাজার টাকা ছিনিয়ে নিয়ে যায়। এ ঘটনায় রওশন আরা ডিবি পুলিশে অভিযোগ দেন।

তিনি জানান, ডিবি পুলিশ সোমবার রবিন মিয়াকে আটক করেন। তাকে একটি ছিনতাই মামলায় গ্রেফতার দেখিয়ে আদালতে পাঠানোর প্রাক্কালে বাথরুমে গিয়ে তিনি হারপিক পান করেন। সুস্থ হলে আসামিকে আদালতে পাঠানো হবে বলে জানান তিনি।

মন্তব্যসমূহ (০)


Lost Password


মন্তব্য করতে নিবন্ধন করুন