মরার আগে কোন ঔষধ খেতে দেয়নি আল্লামা শফীকে

কওমি মাদ্রাসাভিত্তিক অরাজনৈতিক সংগঠন হেফাজতে ইসলামের প্রতিষ্টাতা আমির আল্লামা শাহ আহমদ শফীকে মৃত্যুর আগে ওষুধ খেতে দেওয়া হয়নি। এবং সেই সঙ্গে তার বাসার বিদ্যুৎ সংযোগ বিচ্ছিন্ন করা হয় এবং রাস্তায় অ্যাম্বুলেন্স আটকে দেওয়া হয়েছিল। এক সংবাদ সম্মেলণে হেফাজতে ইসলামের বিলুপ্ত কমিটির কেন্দ্রীয় সাহিত্য বিষয়ক সম্পাদক নুরুল ইসলাম জাদিদ এসব কথা বলেছেন।

জাতীয় প্রেসক্লাবের ভি.আই.পি লাউঞ্জে বুধবার (২ জুন) বেলা সাড়ে ১১টার দিকে সংবাদ সম্মেলন তিনি লিখিত বক্তব্যে এ অভিযোগ করেন।

হাটহাজারী মাদরাসার সাবেক মুহাদ্দিস নুরুল ইসলাম জাদিদ দাবি করে বলেন, আল্লামা আহমদ শফীকে পরিকল্পিতভাবে হত্যা করা হয়েছে। হেফাজতের আমিরের মৃত্যু নিয়ে জুনায়েদ বাবুনগরী সংবাদমাধ্যমে মিথ্যাচার করেছেন। যারা আহমদ শফীর হত্যা মামলার আসামি তারা কখনো হেফাজতের কর্ণধার হতে পারেন না।

সে সময় তিনি আরও বলেন, আল্লামা শাহ আহমদ শফীকে পরিকল্পিতভাবে শহীদ করে বিভিন্ন কওমি মাদরাসা এবং হেফাজতে ইসলামকে একটি চিহ্নিতমহল তাদের নিয়ন্ত্রণে নিয়ে নিজেদের এজেন্ডা বাস্তবায়নে গভীর ষড়যন্ত্র করছে।

হাটহাজারী মাদরাসায় আন্দোলনের নামে আল্লামা শফীর রুম ভাঙচুর এবং তার ওপর মানসিক চাপ, অসৌজন্যমূলক আচরণ, মেডিসিন নিতে বাধা প্রদান, তার চিকিৎসায় ব্যাঘাত ঘটানো- এসবই ছিল তাদের পরিকল্পিত ষড়যন্ত্র বলে মন্তব্য করেন নুরুল ইসলাম জাদিদ।

নুরুল ইসলাম জাদিদ আরও বলেন, জেলা শহরসহ সারা দেশে নতুন করে হেফাজতে ইসলামের কমিটি ঘোষণা করা হবে।

মন্তব্যসমূহ (০)


Lost Password