শিক্ষা পুনরুদ্ধারের কেন্দ্রবিন্দুতে শিক্ষক

শিক্ষা পুনরুদ্ধারের কেন্দ্রবিন্দুতে শিক্ষক

বাবা-মা কিংবা পরিবারের গণ্ডির বাইরে একটি শিশুকে প্রকৃত মানুষ হিসেবে গড়ে তুলতে সবচেয়ে বেশি ভূমিকা রাখেন একজন শিক্ষক। যাকে বলা হয় মানুষ গড়ার কারিগর। 

আজ মঙ্গলবার (৫ অক্টোবর) বিশ্ব শিক্ষক দিবস। শিক্ষা ও উন্নয়নের ক্ষেত্রে শিক্ষকদের অসামান্য অবদানের স্বীকৃতিস্বরূপ আজকের এই দিনটি বিশ্বব্যাপী পালন করা হয়। যাদের অবদান ব্যক্তি জীবনে অনস্বীকার্য।

করোনা মহামারির মধ্যে পুরো বিশ্বের জনজীবনের সাথে থমকে ছিল শিক্ষাব্যবস্থাও। তবে বর্তমান পরিস্থিতিতে এ বছর বিশ্ব শিক্ষক দিবসটির প্রতিপাদ্য নির্ধারণ করা হয়েছে, “শিক্ষা পুনরুদ্ধারের কেন্দ্রবিন্দুতে শিক্ষক”। বিশ্বের অন্যান্য দেশের মতো বাংলাদেশেও নানা আয়োজনের মধ্য দিয়ে দিবসটি পালিত হচ্ছে। 

১৯৯৫ সাল থেকে প্রতি বছর ৫ অক্টোবর তারিখ বিশ্বব্যাপী “বিশ্ব শিক্ষক দিবস” পালিত হয়ে আসছে। এই দিবসটি শিক্ষকদের অবদানকে স্মরণ করার জন্য পালন করা হয়।

ইউনেস্কোর মতে, বিশ্ব শিক্ষক দিবস শিক্ষা ও উন্নয়নের ক্ষেত্রে শিক্ষকদের অসামান্য অবদানের স্বীকৃতিস্বরূপ পালন করা হয়। বিশ্বের ১০০টি দেশে এই দিবসটি পালিত হয়ে থাকে। 

বিশ্ব শিক্ষক দিবস জাতীয় উদযাপন কমিটি সন্ধ্যায় এক ভার্চুয়াল মতবিনিময় সভার আয়োজন করেছে। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্য দেবেন পরিকল্পনামন্ত্রী এম এ মান্নান। এতে মূল বক্তব্য পাঠ করবেন বিশ্ব শিক্ষক দিবস উদযাপন কমিটির সভাপতি ও সমন্বয়ক অধ্যাপক কাজী ফারুক আহমেদ। 

এছাড়াও দিবসটি উপলক্ষে স্বাধীনতা শিক্ষক পরিষদের (স্বাশিপ) উদ্যোগে আজ রমনায় ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশনের সেমিনার কক্ষে ‘বঙ্গবন্ধুর দৃষ্টিতে শিক্ষকদের মর্যাদা’ শীর্ষক সেমিনারের আয়োজন করা হয়েছে। সেমিনারে প্রধান অতিথির বক্তব্য দেবেন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক মাহবুব-উল আলম হানিফ। এতে লিখিত প্রবন্ধ উপস্থান করবেন স্বাশিপ সাধারণ সম্পাদক অধ্যক্ষ মোঃ শাহজাহান আলম সাজু। বাংলাদেশ বেসরকারি শিক্ষক-কর্মচারী ফোরাম ‘বঙ্গবন্ধুর শিক্ষা দর্শন ও মুজিববর্ষে এমপিওভুক্ত শিক্ষাব্যবস্থা জাতীয়করণ’ শীর্ষক আলোচনা অনুষ্ঠান এবং র‌্যালির আয়োজন করেছে।

মন্তব্যসমূহ (০)


Lost Password