বাংলাদেশের আকাশে দেখা গেলো রংধনু

বাংলাদেশের আকাশে দেখা গেলো রংধনু

উত্তরার আকাশে দেখা গেলো রংধনু। শুক্রবার ২৪/৬/২০২২ ছয়টার দিকে আকাশে ভেসে উঠে রংধনু । আকাশে বিশাল আকৃতির রংধনু বলয় মেঘ করে বৃষ্টির পর আকাশ হয়ে যায় ঝকঝকে। আকাশে তখন আবার সূর্য ওঠে। মাঝে মাঝে বৃষ্টির পর আকাশে নানা রঙের ঝিলিক দেখা যায়। মনে হয়, নানা রঙের ধনুক আকাশ জুড়ে আছে।

নানা রঙের এই ধনুককে বলে রংধনু। আমাদের মনে প্রশ্ন জাগে, আকাশে কেন রংধনু দেখা যায়? দিনের প্রথম অংশে আর শেষ অংশে অর্থাৎ সকাল এবং বিকেলেই রংধনু দেখা যায়। রংধনু সাধারনত আলোর প্রতিফলন, প্রতিসরনের কারনে হয়ে থাকে। সূর্য থেকে আগত আলো বাতাসে ভেসে থাকা জলীয় বাষ্পের কনাতে প্রতফলিত হয়ে দৃশ্যমান আলোর কয়েকটি স্তরে ভাগ হয়ে পড়ে।

সাধারনত বৃষ্টির সময়ে বাতাসে জলীয় কনার পরিমান বেশি হয় , তাই আকাশের বিশাল জায়গা জুড়ে রংধনু দেখা যায়। 40.89–42° হল প্রতিফলিত হয়ে রংধনু হওয়ার জন্যে উপযুক্ত। তো আকাশে রংধনু হওয়ার জন্যে সুর্যে আকাশের পুর্ব অথবা পশ্চিম ভাগে হেলে থাকতে হয়,তাই দুপুরে রংধনু দেখা যায় না। কারন সুর্য তো তখন মাথার উপরে থাকে ।

বৃষ্টির পর আকাশ পরিষ্কার মনে হয়। কিন্তু কিছু কিছু পানির কণা তখনও বাতাসে ভাসতে থাকে। সূর্যের আলো এ পানির কণা ভেদ করে পৃথিবীতে আসে। পানির কণা ভেদ করার সময় সূর্যের আলো বেঁকে যায়। আর সূর্যের সাদা রং সাতটি রঙে ভাগ হয়ে যায়। এ রঙগুলো হলো-বেগুনি নীল, আসমানি, সবুজ, হলুদ, কমলা ও লাল। এ সাতটি রঙকে আমরা রংধনুর আকারে আকাশে দেখি। আকাশে রংধনু সব সময় সূর্যের উল্টো পাশে দেখা যায়। আর রংধনু উঠলেই বোঝা যায় বৃষ্টি আর হবে না।

মন্তব্যসমূহ (০)