বাবরীর পর এবার মুঘল আমলের আরেক মসজিদও ভাঙবে ভারত

ঐতিহাসিক বাবরী মসজিদের পর এবার মুঘল আমলের আরেক নিদর্শন জ্ঞানবাপী মসজিদ নিয়েও কাদা ছোড়াছুড়ি শুরু হয়েছে ভারতে। ভারতের বারানসিতে অবস্থিত এই মসজিদের নিচে হিন্দু মন্দিরের চিহ্ন রয়েছে কিনা তা খোঁজার নির্দেশ দিয়েছে স্থানীয় একটি আদালত। কাশী বিশ্বনাথ মন্দিরের পাশেই এই মসজিদের অবস্থান।

দেশটির সনাতন ধর্মাবলম্বীদের দাবি, ১৬৬৪ সালে মুঘল সম্রাট আওরঙ্গজেব তথাকথিত প্রাচীন এক মন্দির ভেঙে নাকি সেখানে মসজিদটি নির্মাণ করেন। এ নিয়ে ১৯৯১ সালে আদালতে একটি পিটিশন দায়ের হয়েছিল।

বৃহস্পতিবার ৩০ বছরের পুরোনো সেই পিটিশনের শুনানিতে বারানসি আদালত ভারতের প্রত্নতাত্ত্বিক জরিপ সংস্থাকে (এএসআই) মসজিদটির নীচে মন্দিরের কোনো ধ্বংসাবশেষ আছে কিনা তা অনুসন্ধানের নির্দেশ দিয়েছে। মূলত মসজিদটি মন্দিরের জায়গায় বানানো কিনা তা জানতেই উদ্যোগ।

এএসআইয়ের মহাপরিচালককে বিষয়টি তদন্তের জন্য পাঁচ সদস্যের একটি কমিটি করতে বলা হয়েছে, যার মধ্যে দুজন সংখ্যালঘু (মুসলিম) সম্প্রদায়ের সদস্য থাকতে হবে। কমিটির কার্যক্রম পর্যবেক্ষণের জন্য প্রসিদ্ধ কাউকে নিয়োগ দেয়ারও নির্দেশনা দেয়া হয়েছে।

এই প্রত্নতাত্ত্বিক জরিপের মূল উদ্দেশ্য হবে ‘বিতর্কিত স্থানে’ বর্তমানে যে ধর্মীয় অবকাঠামো দাঁড়িয়ে রয়েছে, তাতে অন্য কোনও ধর্মীয় স্থাপনার যেকোনও ধরনের পরিবর্তন, সংযোজন বা রূপান্তরের চিহ্ন রয়েছে কিনা তা খুঁজে বের করা। অর্থাৎ, মসজিদের ওই জায়গায় কখনো হিন্দু মন্দির ছিল কিনা, সেটাই অনুসন্ধান করবে কমিটি।

এখন দেখার বিষয় মন্দিরের ধ্বংসাবশেষ খুঁজতে গিয়ে মসজিদটিকে অক্ষত রাখা হবে কিনা। স্থানীয় মুসলিমরা বাবরী মসজিদের মতো এই সমজিদটিও ভেঙে ফেলা হবে বলে আশঙ্কা করছেন। এদিকে এই রায়ের বিরোধিতা করে তা বাতিলের দাবি জানিয়েছে অল ইন্ডিয়া মুসলিম পার্সোনাল ল বোর্ড।

সূত্র : হিন্দুস্তান টাইমস

মন্তব্যসমূহ (০)


Lost Password


মন্তব্য করতে নিবন্ধন করুন