সবার আগে দেশ, আইপিএল খেলবেন না মোস্তাফিজ

সাকিব ছুটি নিয়েছেন আইপিএল খেলতে। মোস্তাফিজও নিতে পারতেন। আবেদন করলে পেতে পারতেন ছুটি। বিসিবি প্রধান নাজমুল হাসান সে ইঙ্গিত দিয়েছিলেন একদিন আগেই। তিনি বলেছিলেন, এটা মোস্তাফিজের ব্যাপার। সে খেলতে চাইলে খেলবে।

নিজের উপর যখন সিদ্ধান্ত নেয়ার দায়িত্ব, তখন মোস্তাফিজ খুব বেশি দেরি করলেন না। নিউজিল্যান্ডগামী বিমান ধরার আগেই আইপিএল প্রসঙ্গটি মাটিচাপা দিলেন। বেশ দ্ব্যর্থ কণ্ঠে জানিয়ে দিয়ে গেলেন, আগে দেশ, পরে সব। তার মানে এপ্রিলে স্কোয়াডে থাকলে শ্রীলঙ্কার মাটিতে টেস্ট খেলবে মোস্তাফিজ। স্কোয়াডে না থাকলে ভিন্ন কথা।

মঙ্গলবার মিরপুরের অ্যাকাডেমি থেকে বিমানবন্দরের উদ্দেশে রওনা দেয়ার আগে মোস্তাফিজ বলেন, ‘আমার কাছে সবার আগে দেশ, পরে বাকি সব। টিম ম্যানেজমেন্ট যদি টেস্টে আমাকে রাখে, তাহলে আমি টেস্ট খেলব। যদি না রাখে তাহলে বিসিবি জানে। বিসিবি যেটা বলবে আমি সেটা করব। বিসিবি সভাপতির সঙ্গে আমি কথা বলেছি, উনি আমার ওপর ছেড়ে দিয়েছেন। আর আমি দেশের খেলাকেই বেছে নিচ্ছি।’

দেশের খেলা বাদ দিয়ে অন্য চিন্তা করতেই চান না মোস্তাফিজ। বলেন, ‘সবার আগে আমার কাছে দেশের খেলা। শ্রীলঙ্কা টেস্টে যদি থাকি, তাহলে আমি টেস্ট খেলব। যদি না থাকি তাহলে বিসিবি তো আমাকে বলবে যে আমি নেই। আমি বিসিবিকে তখন বলব, বিসিবি যদি আমাকে ছাড়ে, তাহলে আমি আইপিএলে খেলব। তবে দেশ আগে।’

রাজস্থান রয়্যালস এক কোটি রূপিতে মোস্তাফিজকে দলে টেনেছে। টাকার অংকটা বেশ। সিদ্ধান্ত নিতে মোস্তাফিজকে কোনো চাপ প্রয়োগ করা হয়েছে কি না? এ প্রসঙ্গে তিনি জানান, ‘দেশের বা আইপিএল খেলার বিষয়ে কোনো চাপ নেই। এটা তো স্বাভাবিক ব্যাপারই, আগেও আমি আইপিএলে খেলতে যাইনি দেশের খেলার কারণে। এবারো একইভাবে ভাবছি।’

মোস্তাফিজ দেশের কথা ভাবলেও সাকিব হেটেছেন ভিন্ন পথে। এপ্রিলে শ্রীলঙ্কায় যখন বাংলাদেশ খেলবে টেস্ট, তখন কলকাতা নাইট রাইডার্সের হয়ে টি- টোয়েন্টি খেলবেন সাকিব। বর্তমানে তৃতীয় সন্তানের জন্মের সময় যুক্তরাষ্ট্রে স্ত্রীর পাশে থাকতে নিউজিল্যান্ড সফরেও যাচ্ছেন না বাঁহাতি এই অলরাউন্ডার।

মন্তব্যসমূহ (০)


Lost Password


মন্তব্য করতে নিবন্ধন করুন