শিক্ষকের নামে টাকা উত্তোলন করে অন্যত্র ব্যবহারের অভিযোগ

ঢাকা, মে ১০, ২০২১: রাজধানীর মনিপুর উচ্চ বিদ্যালয়ের  ৯৭-ব্যাচের কতিপয় প্রাক্তন ছাত্রের বিরুদ্ধে একই স্কুলের এক শিক্ষকের আর্থিক অস্বচ্ছলতা প্রচার করে টাকা উত্তোলন করে অন্যত্র ব্যবহারের অভিযোগ উঠেছে।

অভিযোগ উঠেছে, ওই ব্যাচের কিছু সাবেক ছাত্র গত মার্চে চ্যারিটির নামের ফেসবুকে ইভেন্ট খোলেন। তারপর থেকে তেমন কোন সাড়া পাচ্ছিল না। এপ্রিল মাসে এসে সেখানে স্কুলের একজন শিক্ষকের ব্যক্তিগত ছবি ব্যবহার করে সাহায্যের আবেদন করা হলে ব্যাপক সাড়া ফেলে। দেশ-বিদেশে প্রতিষ্ঠিত স্যারের অনেক ছাত্র-ছাত্রী মানবিক কারণে সাহায্যার্থে এগিয়ে আসে। গ্রুপটি বিভিন্ন উপায়ে চ্যারিটির নামে ব্যক্তিগত অ্যাকাউন্টে টাকাগুলো গ্রহণ করে। বিষয়টির আদ্যোপান্ত সম্পর্কে স্যার কিছুই জানতেন না। তাছাড়া পরবর্তীতে জানা গেছে, স্যারের তেমন কোনো আর্থিক অস্বচছলতা ছিল না।

আরো অভিযোগ উঠেছে, মউবি-৯৭ নামের ফেসবুক গ্রুপটি এ পর্যন্ত বিভিন্ন উৎস থেকে চ্যারিটির নামে প্রায় ৪- ৫ লক্ষ টাকা গ্রহণ করে। টাকাগুলো তারা বিভিন্ন অননুমোদিত খাতে নিজেদের মতো করে ব্যবহার করে। বিষয়টি প্রথমে অনেকে বুঝতে না পারলেও ধীরে ধীরে ঘটনা জানাজানি হলে গ্রুপটি নিজেদের মতো করে ‘পোস্টটি এডিট’ করে দেয়। তখন সেখানে একজন শিক্ষকের বদলে অনেক শিক্ষকের কথা বলা হয়। এ ব্যাপারে একাধিক ইভেন্টের স্ক্রিনশট এই প্রতিবেদকের হাতে রয়েছে। 

অভিযোগের বিষয়ে মউবি-৯৭ চ্যারিটি গ্রুপের একজন সদস্য এস কে ওহাব বলেন, তারা এমন কোনো কাজের সাথে জড়িত না। অন্য একটি গ্রুপের পোস্টটি আমরা আমাদের নিজেদের পেইজে শেয়ার দিয়েছি মাত্র। টাকা গ্রহণ করার জন্য চ্যারিটির অনুমোদন আছে কিনা জানতে চাইলে তিনি বারবার প্রশ্নটি এড়িয়ে যান। পরে বিস্তারিত লিখে প্রতিবেদককে ই-মেইল বার্তা পাঠাতে বলেন।

এই বিষয়ে শিক্ষকের মন্তব্য জানতে চেয়ে তার মোবাইলে যোগাযোগ করা হলে তাকে পাওয়া যায়নি।
আরো জানা গেছে, এই চ্যারিটি ফান্ড কমিটিতে অনেক বিতর্কিত ব্যক্তি রয়েছেন যাদের বিরুদ্ধে আগে নানাবিধ অভিযোগ রয়েছে। বিতর্কিত কমিটি দিয়ে এমন উদ্যোগ চালানোয় সাধারণ ছাত্র-ছাত্রী, অভিভাবক, প্রাক্তন শিক্ষার্থী ও স্কুলের শিক্ষকদের মধ্যে ক্ষোভ বিরাজ করছে। শিক্ষকের নাম ভাঙিয়ে এমন ঘৃণ্য কাজ যাতে ভবিষ্যতে না হতে পারে সে ব্যাপারে সবাইকে সতর্ক থাকার অনুরোধ জানান।

মন্তব্যসমূহ (০)


Lost Password