কুড়িগ্রামে শ্বশুরের মাথা ফাটালেন পুলিশ সদস্য

কুড়িগ্রামের ফুলবাড়ীতে যৌতুকের টাকা দেয়া-নেয়ার জেরে বাঁশ দিয়ে আঘাত করে শ্বশুরের মাথা ফাটিয়ে দিয়েছেন পুলিশ কনস্টেবল এক জামাতা। বুধবার সকালে উপজেলার নন্দিরকুটি গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।আহত শ্বশুরের নাম একরামুল হক (৪২)। তিনি নন্দিরকুটি গ্রামের আফছার আলীর ছেলে। আর জামাতা হলেন একই গ্রামের আলমগীর হোসেনের ছেলে এবং দিনাজপুর পুলিশ লাইন থেকে রংপুর পুলিশ লাইনে সদ্য বদলি হয়ে ছুটিতে থাকা পুলিশ কনস্টেবল মাসুদ রানা (২২)।

অভিযোগে জানা গেছে, একরামুল হকের কন্যা রেহেনা আক্তার নীলার সঙ্গে মাসুদ রানার বিয়ে হয় এক বছর আগে। বিয়ের সময় জামাইকে সাত লাখ টাকা উপঢৌকন হিসেবে দেন একরামুল। কিন্তু আরও পাঁচ লাখ টাকার জন্য রেহেনাকে শারীরিক ও মানসিক নির্যাতন করতে থাকে মাসুদ রানা।এ নিয়ে উভয় পরিবারের মধ্যে ঝগড়া-বিবাদের একপর্যায়ে বুধবার সকালে নিজ বাড়ির সামনের রাস্তায় একরামুলের গতিরোধ করেন জামাই মাসুদ রানা ও তার পরিবারের লোকজন।

সেখানে বাকবিতণ্ডার একপর্যায়ে বাঁশ দিয়ে আঘাত করে একরামুলের মাথা ফাটিয়ে দেয় জামাই মাসুদ রানা।পরে স্থানীয়রা মারাত্মক আহত একরামুলকে উদ্ধার করে ফুলবাড়ী হাসপাতালে ভর্তি করেন। জামাতা কর্তৃক শ্বশুরের মাথা ফাটানোর ঘটনায় এলাকায় চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে।ফুলবাড়ী থানার এসআই  আশরাফ জানান, অভিযোগ পেয়েছি; তদন্তসাপেক্ষে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

মন্তব্যসমূহ (০)


Lost Password


মন্তব্য করতে নিবন্ধন করুন