পাপিয়াকাণ্ডে এমপির নাম জড়ানোয় আ.লীগ নেতা গ্রেপ্তার

নরসিংদী জেলা যুব মহিলা লীগের বহিষ্কৃত সাধারণ সম্পাদক শামীমা নূর পাপিয়ার সঙ্গে সংসদ সদস্য সেলিম আলতাফ জর্জের নাম জড়িয়ে লেখার কারণে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে গ্রেপ্তার হয়েছেন কুষ্টিয়ার এক আওয়ামী লীগ নেতা।

গ্রেপ্তার মোমিনুর রহমান মোমিজ কুষ্টিয়া শহর আওয়ামী লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক। তিনি দেশের বাণী নামে স্থানীয় একটি সংবাদপত্রের মালিক ও সম্পাদক।

কুমারখালী থানার পরিদর্শক আবদুল আলীম গণমাধ্যমকে বিষয়টি নিশ্চিত করেন। তিনি জানান, গতকাল বৃহস্পতিবার ভোররাতে কুমারখালী থানায় মামলাটি দায়েরের ঘণ্টাখানেকের মধ্যে জেলা শহরের নারকেলতলা এলাকা থেকে মোমিজকে গ্রেপ্তার করা হয়।

 

সাংসদ জর্জের বিরুদ্ধে ইন্টারনেটে কুৎসা রটানোর অভিযোগ এনে কুমারখালী উপজেলার মির্জাপুর গ্রামের জহুরুল ইসলাম বাদী হয়ে ফেসবুক আইডিধারী মোমিজ রহমান, রবি রহমান, শিমুল আহমেদ, শেখ নাঈম ও একটি সাপ্তাহিকের বিরুদ্ধে মামলাটি করেন।

মামলার তদন্ত কর্মকর্তা কুমারখালী থানার পরিদর্শক আলীম গণমাধ্যমকে বলেন, ‘মাননীয় সংসদ সদস্যের নামে কুৎসা রটনার অভিযোগে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে করা মামলার ৩ নম্বর আসামি মোমিজ রহমানকে গ্রেপ্তার করে কুষ্টিয়া অতিরিক্ত চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে সোপর্দ করা হয়। বৃহস্পতিবার দুপুরে আদালত শুনানি শেষে জামিন নামঞ্জুর করে তাকে কারাগারে প্রেরণের নির্দেশ দেন।’

কুষ্টিয়া জেলা আওয়ামী লীগের দপ্তর সম্পাদক তরিকুল ইসলাম মানিক বলেন, ‘মোমিজ কুষ্টিয়া শহর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ছিলেন। পরে জেলা আওয়ামী লীগের সদস্য হন। সর্বশেষ প্রস্তাবিত নতুন কমিটিতে সদস্য হিসেবে তার নাম দেওয়া আছে। তবে সেই কমিটি এখনো অনুমোদিত হয়ে আসেনি।’

প্রসঙ্গত, গত ২২ ফেব্রুয়ারি দেশত্যাগের সময় হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর থেকে পাপিয়া, তার স্বামী সুমন এবং তাদের দুই সহযোগী সাব্বির খন্দকার ও শেখ তায়্যিবাকে গ্রেপ্তার করে র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‌্যাব)। এ সময় তাদের কাছ থেকে সাতটি পাসপোর্ট, নগদ ২ লাখ ১২ হাজার ২৭০ টাকা, ২৫ হাজার ৬০০ টাকার জাল মুদ্রা, ১১ হাজার ৯১ মার্কিন ডলারসহ বিভিন্ন দেশের মুদ্রা জব্দ করা হয়।

পরবর্তী সময়ে তাদের আবাসস্থলে অভিযান চালিয়ে একটি বিদেশি পিস্তল, দুটি ম্যাগাজিন, ২০ রাউন্ড গুলি, পাঁচ বোতল বিদেশি মদ, নগদ ৫৮ লাখ ৪১ হাজার টাকা, পাঁচটি পাসপোর্ট, তিনটি চেক, বিদেশি মুদ্রা, বিভিন্ন ব্যাংকের ১০টি ভিসা কার্ড ও এটিএম কার্ড জব্দ করে র‌্যাব।

গ্রেপ্তারের পর যুব মহিলা লীগ থেকে পাপিয়াকে আজীবনের জন্য বহিষ্কার করা হয়। আর জাল টাকা উদ্ধার, অস্ত্র ও মাদকের পৃথক তিনটি মামলায় পাপিয়া ও সুমনের প্রত্যেককে ১৫ দিন করে রিমান্ড দেন আদালত।

মন্তব্যসমূহ (০)


লগইন করুন


Remember me Lost your password?

Don't have account. Register

Lost Password


মন্তব্য করতে নিবন্ধন করুন