নওগাঁয় চার ইউপির ফলাফল স্থগিত, নির্বাচিত নৌকা ১৩, বিদ্রোহী ৪, স্বতন্ত্র ২

নওগাঁয় চার ইউপির ফলাফল স্থগিত, নির্বাচিত নৌকা ১৩, বিদ্রোহী ৪, স্বতন্ত্র ২

নওগাঁ জেলার পঞ্চম ধাপে ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে তিন উপজেলার ২৩টি ইউনিয়নে ভোট গ্রহণ হয়েছে। এরমধ্যে সাপাহার ও পোরশা উপজেলার ১২টি ইউনিয়নে পূর্ণাঙ্গ ফলাফল পাওয়া গেছে।

যেখানে নৌকা প্রতীকে ১১ এবং স্বতন্ত্র পদে একজন (বিদ্রোহী) প্রার্থী বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন। তবে পত্নীতলা উপজেলার ১১ ইউনিয়নের মধ্যে চার ইউনিয়নে নির্বাচনী পরবর্তী সহিংসতায় ৪ ইউপির ফলাফল ঘোষণা স্থগিত রয়েছে, ৭ ইউপির ফলাফল ঘোষণা করা হয়েছে। বুধবার রাত ১২টার দিকে নওগাঁ জেলার সাপাহার উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা রেজাউল ইসলাম, পোরশা উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা তোজাম্মেল হক এবং পত্নীতলা উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা জাহিদুল ইসলাম বেসরকারিভাবে ফলাফল ঘোষণা করেন।

পত্নীতলা উপজেলায় নৌকা প্রতীকে বিজয়ীরা হলেন- মাটিন্দর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি সুলতান মাহমুদ ও নির্মইল ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি আবুল কালাম আজাদ। স্বতন্ত্র বিজয়ী প্রার্থী হলেন- পাটিচড়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সদস্য ছবেদুল ইসলাম রনি (বিদ্রোহী), আমাইড় ইউনিয়ন বিএনপির সদস্য শহীদুল ইসলাম, শিহাড়া ইউনিয়ন বিএনপির সদস্য তোফাজ্জল হোসেন, নজিপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সদস্য হাবিবুর রহমান মিন্টু (বিদ্রোহী) এবং দিবর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সদস্য রাহাদ জামান (বিদ্রোহী)।

নিবাচনী সহিংসতার কারণে স্থগিত রয়েছে- ঘোষনগর, কৃষ্ণপুর, পত্নীতলা ও আকবরপুর ইউনিয়ন এর ফলাফল।

পোরশা উপজেলার ছয়টি ইউনিয়নের মধ্যে ছয়টিতে নৌকা প্রতীক নিয়ে বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন। বিজয়ীরা হলেন-নিতপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি এনামুল হক, তেঁতুলিয়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ফজলুল হক শাহ্ চৌধুরী, ছাওড় ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সদস্য মোস্তাফিজুর রহমান, গাঙ্গুরিয়া উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক আনিসুর রহমান, ঘাটনগর ইউনিয়নে উপজেলা আওয়ামী লীগের সদস্য বজলুর রহমান এবং মশিদপুরে ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি হারুন অর রশিদ।

অপরদিকে, সাপাহার উপজেলার ছয়টি ইউনিয়নের মধ্যে নৌকা প্রতীকের পাঁচজন ও স্বতন্ত্র (বিদোহী) একজন বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন। নৌকা প্রতীকে বিজয়ীরা হলেন-সাপাহার সদর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি সাদেকুল ইসলাম, গোয়ালা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি ইউনিয়নে কামরুজ্জামান, তিলনা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি মোসলেম উদ্দীন, পাতাড়ী ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর আলম এবং শিরন্টি ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সহ -সভাপতি বোরহান উদ্দীন। স্বতন্ত্র বিজয়ী প্রার্থী হলেন-আইহাই ইউনিয়নে বহিষ্কৃত ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক জিয়ারুজ্জামান টিটু।

নওগাঁ জেলা নির্বাচন অফিস সূত্রে জানা গেছে, জেলার তিনটি উপজেলার ২৩ টি ইউনিয়নের মোট ২২০ টি কেন্দ্রের ১ হাজার ২০৩ কক্ষে মোট ৪ লাখ ৩ হাজার ৮৩৮ জন ভোটার তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগ করেছেন। যেখানে চেয়ারম্যান পদে ৯৮ জন, সংরক্ষিত মহিলা সদস্য পদে ২৮৭ জন এবং সাধারণ সদস্য পদে ৭৮৪ জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বীতা করেছেন।

মন্তব্যসমূহ (০)


Lost Password