ই-ক্যাব নির্বাচনে ‘ঐক্য’ প্যানেলের ইশতেহার ঘোষণা

ই-ক্যাব নির্বাচনে ‘ঐক্য’ প্যানেলের ইশতেহার ঘোষণা

ই-ক্যাবের ২০২২-২৪ মেয়াদে চতুর্থ দ্বিবার্ষিক কার্যনির্বাহী কমিটির নির্বাচন সামনে রেখে নির্বাচনী ইশতেহার দিয়েছে ‘ঐক্য’ প্যানেল। ঘোষিত ইশতেহারে দেশের সবচেয়ে সম্ভাবনাময় ই-কমার্স খাতের অন্যতম সংগঠন ই-ক্যাব সুসংগঠিত করার পাশাপাশি সময়ের দাবি পূরণের প্রতিশ্রুতি এসেছে।

 এই নির্বাচনে অংশ নিচ্ছে 'ঐক্য' প্যানেল। নির্বাচনকে সামনে রেখে ঐক্যের টিম লিডার প্রকৌশলী আব্দুল আজিজ নির্বাচনী ইশতেহার ঘোষণা করেছেন।সোমবার (১৩ জুন) সন্ধ্যায় রাজধানীর বনানীর হোটেল শেরাটনে এক অনুষ্ঠানে নিজেদের ভাবনা ও পরিকল্পনা তুলে ধরেন তিনি।

এ সময় প্যানেল সদস্য হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, মোহাম্মদ সাজ্জাদুল ইসলাম (অংশীদার-ক্রাফটসম্যান সলুশন), মো. তাজুল ইসলাম (আই এক্সপ্রেস লিমিটেড), আরিফ মোহাম্মদ আব্দুস শাকুর চৌধুরী (স্কুপ ইনফোটেক লিমিটেড), মো. সেলিম শেখ (নূরতাজ ডট কম বিডি), সামদানি তাব্রীজ (র্যাপিডো ডেলিভারিস), ইঞ্জিনিয়ার তৌহিদা হায়দার রিমা (মেনসেন মিডিয়া), মো. আরিফুল ইসলাম ডিপেন (পরান বাজার) এবং ছোফায়েত মাহমুদ লিখন (কোরিয়ান মার্ট বিডি)।

ই-কমার্স খাতের বিভিন্ন বিভাগে বিগত বছরসমূহে সরকার যেমন বিভিন্ন সিদ্ধান্ত নিয়ে নতুন সম্ভাবনা হিসেবে জেগে উঠার সুযোগ করে দিয়েছে, তেমনই তরুন উদ্যোক্তারা এগিয়ে এসে উদ্যোগী হয়ে এসব সমস্যার সমাধানে ভূমিকা রেখেছেন। প্রতিনিধিত্বকারী বাণিজ্য সংগঠন হিসেবে ই-ক্যাবও রেখেছে উল্লেখযোগ্য ভূমিকা। টিম 'ঐক্য' সকল পক্ষকে নিয়ে একসাথে কাজ করার মানসিকতা ও পরিবেশ তৈরি করতে চায়। 

ঐক্য প্যানেলের টিম লিডার প্রকৌশলী আব্দুল আজিজ বলেন, আগামী দুই বছরের জন্য আমাদের মূল লক্ষ থাকবে, ই-কমার্সের বাজার সম্প্রসারণের পাশাপাশি উদ্যোক্তা, বিনিয়োগ, তথ্য ও প্রশিক্ষণপ্রাপ্তি সহজ করা এবং ই-কমার্স বান্ধব আইন, বাজেট ও নীতি প্রণয়নে জোরালো ভূমিকা পালন করা।

‘ঐক্য’ প্যানেলের ইশতেহারে যা রয়েছে-
১. সুসংগঠিত ই-ক্যাব
২. ক্ষুদ্র নারী উদ্যোক্তাদের উন্নয়ন
৩. উদ্যোক্তা সুরক্ষা ও বিনিয়োগ
৪. গ্রামীণ ই-কমার্স ও প্রান্তিক ডেলিভারি সেবা
৫. ই-ট্যুরিজম ও সেবাভিত্তিক ই-কমার্স খাতের উন্নয়ন
৬. ই-কমার্সবান্ধব নীতি, নির্দেশিকা, আইন ও বিধি তৈরিতে কার্যকর ভূমিকা পালন
৭. ক্রস বর্ডার ই-কমার্স এবং
৮. ই-কমার্সের বাজার সম্প্রসারণ

মন্তব্যসমূহ (০)