এখনো খোঁজ মেলেনি ৩ ফায়ার ফাইটারের

এখনো খোঁজ মেলেনি ৩ ফায়ার ফাইটারের

সীতাকুণ্ডের বিএম কনটেইনার ডিপোতে ভয়াবহ আগুন নেভাতে গিয়ে মারা গেছেন ৯ জন ফায়ার ফাইটার। এ ঘটনায় আহত হয়েছেন আরও অনেকে। তবে এখনও খোঁজ মিলছে না ৩ জন ফায়ার ফাইটারের। পরিবার-স্বজনদের প্রার্থনা, সুস্থ শরীরেই ফিরে আসুক তারা তিনজন। নিখোঁজ ফায়ার ফাইটারদের মধ্যে একজন হলেন শফিউল। স্বামীর খোঁজ না পেয়ে দিশেহারা তার পাঁচ মাসের অন্তসত্ত্বা স্ত্রী।

সিরাজগঞ্জের শফিউল ইসলাম সীতাকুন্ডের বিএম কন্টেইনার ডিপোতে আগুন নেভাতে যান শনিবার (৪ জুন) রাতে। তারপর থেকেই সন্ধান মিলছে না তার। ২০১৯ সালে ফায়ার সার্ভিসে যোগ দেন নওগাঁর ছেলে রবিউল ইসলাম। পাঁচ সদস্যের দরিদ্র পরিবারটি তার ওপরেই নির্ভরশীল। সীতাকুণ্ডের আগুনে হারিয়েছেন তিনিও। এদিকে, খোঁজ মিলছে না চাঁদপুরের এমরান হোসেনেরও। কুমিরা ফায়ার স্টেশনের দলপতি ছিলেন তিনি।

অগ্নিকাণ্ডের খবরে ছুটে যান সাহসিকতায়। তার কোনো খোঁজ এখনও পায়নি স্বজনরা। নির্মম সত্যের অপেক্ষায় এখন প্রহর গুনছেন তারা। মাত্র তিন মাস হলো বিয়ে করেছেন রংপুরের যোদ্ধা ফরিদুজ্জামান। অগ্নিকাণ্ডের পর নিখোঁজ ছিলেন অনেকটা সময়। পরিবার আশায় বুক বেঁধেছিল, হয়তো ফিরে আসবে ফরিদ।

ফরিদ আসে না, মাঝরাতে আসে মৃত্যুসংবাদ। বিশ্বাস হয় না স্বজনদের। এখনও ফরিদকে ফেরত চাইছেন তারা। এদিকে, একসাথে এতজন সহকর্মী হারানোর বিভীষিকাময় অভিজ্ঞতা এর আগে কখনও হয়নি ফায়ার ফাইটারদের। একহাতে সহকর্মীর মরদেহ, অন্যহাতে আগুন নেভানো সরঞ্জাম নিয়ে অকুতোভয় ফায়ার ফাইটাররা কাজ করে গেছেন। তাদেরও চোখে শোকের ছায়া।

মন্তব্যসমূহ (০)