মোদির পরিবর্তন নাকি, মমতার প্রত্যাবর্তন ভাগ্য গণনা শুরু

বাংলায় হাইভোল্টেজ ভোট গণনা রোববার (২ মে) শুরু হয়ে গেছে। এদিন বিকেলের মধ্যে ঠিক হয়ে যাবে মোদীর সোনার বাংলা ডাকে-পরিবর্তন, নাকি মমতার জয় বাংলা স্লোগানে-প্রত্যাবর্তন, অথবা রাজ্যে তৃতীয় শক্তি সংযুক্ত মোর্চার স্লোগান বিকল্প আমরাই।কাকে বেছে নেবে রাজ্যবাসী? ভাগ্য নির্ণয় হচ্ছে মোট ২,১৩২ জন প্রার্থীর। ২৯২টি আসনে জন্য রাজ্য জুড়ে ১০৮টি গণনাকেন্দ্রে, গণনা শুরু গেছে সকাল ৮টায়।প্রায় ২৩ থেকে ২৪ হাজার কেন্দ্রীয় বাহিনী মোতায়েন করা হয়েছে গণনা কেন্দ্রের ভেতরে ও বাইরে। আছে কয়েক হাজার সশস্ত্র পুলিশ।তবে রাজ্যে আসন সংখ্যা হওয়ার কথা ছিল ২৯৪টি। কিন্তু মুর্শিদাবাদ জেলার সামশেরগঞ্জ ও জঙ্গিপুর আসনে দুই প্রার্থীর করোনায় মৃত্যু হওয়ার কারণে ওই দুই আসনে ১৬ মে ভোট হবে বলে জানিয়েছে নির্বাচন কমিশন।

অপরদিকে, দুটি কেন্দ্রের দিকে নজর থাকবে সবার। প্রথম, মমতার প্রার্থী হওয়া কেন্দ্র পশ্চিম মেদিনিপুরের নন্দীগ্রাম। ওই কেন্দ্রের গণনা হচ্ছে হলদিয়ায়। অপরটি মমতার ছেড়ে আসা দক্ষিণ কলকাতার কেন্দ্র ভবনীপুর। যেটির গণনা হচ্ছে ওই অঞ্চলের একটি স্কুলে।ফলে ভোট রণক্ষেত্রে কে হাসবেন আর কে পরাস্ত হবেন, মোদী না মমতা? তার নির্বাচনী মার্কসিটের উত্তর মিলতে থাকতে আর কিছুক্ষণ পর থেকেই। তবে শুধু পশ্চিমবাংলা নয়, বাংলার সঙ্গে ভারতে ভোট হয়েছিল আসাম, কেরল, তামিলনাড়ু এবং এক কেন্দ্রশাসিত অঞ্চল পদুচেরিতে। পাঁচ রাজ্যেই ফল মিলবে রোববারই।বাংলায় বিধানসভা ভোটের ইতিহাসে এমন নাটকীয় নির্বাচনী প্রক্রিয়ার এর আগে সাক্ষী থেকেছে কিনা রাজ্যবাসী, তা সন্দেহ রয়েছে! সমীক্ষা অনুযায়ী রাজ্যে এগিয়ে আছে মমতার দল। তবে খুব একটা জোর গলায় মমতাকে এগিয়ে রাখেনি এক্সিট পোলগুলো। বরঞ্চ তারা জানিয়েছে বাংলার প্রতি কেন্দ্রেই লড়াই হবে হাড্ডাহাড্ডি। ফলে একুশে ভোটে রাজ্যবাসী কার হাত ধরলো আর কার থেকে মুখ ফেরালো তার উত্তর আর কিছু সময়ের পরই মিলবে।

মন্তব্যসমূহ (০)


Lost Password


মন্তব্য করতে নিবন্ধন করুন