পাকিস্তানে চার নারী ত্রাণকর্মীকে গুলি করে হত্যা

পাকিস্তানে চার নারী ত্রাণসহায়তা কর্মীকে হত্যা করেছে বন্দুকধারীরা। আজ মঙ্গলবার দেশটির উত্তর-পশ্চিমাঞ্চলীয় প্রদেশ খাইবার পাখতুনখাওয়ায় এই ঘটনা ঘটে। ঘটনার সময় ওই নারীরা নিজেদের গাড়িতে ছিলেন। বার্তা সংস্থা রয়টার্সের প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

খাইবারের নর্থ ওয়াজিরিস্তানের পুলিশ প্রধান সাইফুল্লাহ গান্ধাপুর বলেন, নিহত নারীরা একটি বেসরকারি সংগঠনের সদস্য ছিলেন। তাঁরা অন্যান্য নারীর প্রশিক্ষণ দিতেন। তাৎক্ষণিক কেউ এই হামলার দায় স্বীকার করেনি। তবে সাইফুল্লাহ বলেছেন, কারা জড়িত, তা খুব তাড়াতাড়ি বলা যাবে।

পাকিস্তানের উত্তর-পশ্চিমাঞ্চলে দীর্ঘদিন ধরে ইসলামিক জঙ্গিগোষ্ঠী নারীদের হামলার লক্ষ্যবস্তু করে আসছে। বিশেষ করে এই গোষ্ঠীর সদস্যরা নারীশিক্ষার বিরোধী। ২০১২ সালে জঙ্গিগোষ্ঠী তালেবান কিশোরী মালালা ইউসুফজাইকে গুলি করে আহত করেছিল। তিনি দেশটির উত্তরাঞ্চলে বসবাস করতেন এবং নারীশিক্ষার পক্ষে কথা বলতেন। ২০১৪ সালে মালালা শান্তিতে নোবেল পুরস্কার পান। তিনি বিশ্বের সবচেয়ে কম বয়সী নোবেলজয়ী।

খাইবার পাখতুনখাওয়ায় সম্প্রতি নতুন করে জঙ্গিগোষ্ঠীর সহিংসতা বৃদ্ধি পেয়েছে। একসময় এ অঞ্চলেই ছিল স্থানীয় ও আফগান তালেবানদের সদর দপ্তর। পাশাপাশি এই অঞ্চলে আন্তর্জাতিক জঙ্গিগোষ্ঠী আল-কায়েদার সদস্যরা ক্রিয়াশীল ছিলেন।

গত বছরের শেষ দিকে পাকিস্তানি তালেবানেরা তাদের বিবদমান দুটি পক্ষকে নিজেদের ঘরে নিয়ে আসে। এরপর থেকে সেখানে হামলা বৃদ্ধি পেয়েছে। যুক্তরাষ্ট্রের মদদপুষ্ট জঙ্গিগোষ্ঠী পাকিস্তানি তালেবান সম্প্রতি কয়েক বছর ধরে ছন্নছাড়া অবস্থায় ছিল। বিশেষ করে মার্কিন ড্রোন হামলায় পাকিস্তান ও আফগানের উভয় পাশে তাদের শীর্ষ নেতারা নিহত হলে তাদের ওই অবস্থা হয়। তবে বর্তমানে সামরিক নিয়ন্ত্রণে থাকা এই অঞ্চলকে বেসামরিক কর্তৃপক্ষের কাছে হস্তান্তরের প্রক্রিয়া চলছে।

মন্তব্যসমূহ (০)


Lost Password


মন্তব্য করতে নিবন্ধন করুন