বিয়ের প্রথম ৬ মাসে মাত্র ২১ দিন ওকে কাছে পেয়েছি!'

বিয়ের পর প্রথম ছ' মাস বিরাটের সঙ্গে মাত্র ২১দিন কাটিয়েছি। আমি দিন গুনে রাখতাম। আর তাই যেটুকু সময় যেকটা দিন আমাদের দেখা হয়েছে সেই প্রতিটা মুহূর্ত ছিল আমার কাছে খুব দামি''- সোজাসাপটা স্বীকারোক্তি অনুষ্কা শর্মার। বিয়ের পর তিনি এবং বিরাট কোহলি দুজনেই পেশার জন্য খুব ব্যস্ত থাকতেন। দেখা বলতে ভরসা ছিল ভিডিয়ো কল। কিংবা কখনও খুব শর্ট ট্রিপ। বিরাটের যেখানে খেলা থাকত সেখানে হয়তো অনুষ্কা কোনও রকমে একটা দিন ম্যানেজ করে দেখা করতেন বা কখনও বিরাট পৌঁছে যেতেন অনুষ্কার শ্যুটিং স্পটে। কিন্তু এভাবে দুজনেই হাঁপিয়ে উঠছিলেন।

সম্প্রতি ভোগের একটি সাক্ষাৎকারে এমনটাই জানিয়েছেন পাতাল লোক, বুলবুলের সফল প্রযোজক অনুষ্কা শর্মা। অনুষ্কা আরও জানান, 'সকলেই ধরে নিতেন আমি যখন বিরাটের সঙ্গে দেখা করতে আসি বা ও যখন আমার সঙ্গে দেখা করতে যায় তা হল ছুটি। কিন্তু কাজের মাঝে ওভাবে ছুটি হয় না। কারণ আমরা টানা কাজ করে যেতাম। আমরা বিয়ের পর প্রথম ছ'মাস একসঙ্গে মোটে ২১ দিন থেকেছি। হ্যাঁ আমি গুনে দেখেছি। আর তাই যখন আমাদের দেখা হত তখন অন্তত একসঙ্গে লাঞ্চ বা ডিনারটা করবো সেটা তো খুবই স্বাভাবিক। এই প্রতিটা মুহূর্ত আমার কাছে ছিল খুব স্পেশ্যাল'।

আর তাই লকডাউনে তাঁদের পোয়া বারো। এই প্পথম দুজনে একসঙ্গে অনেকটা সময় কাটাতে পারলেন। আড্ডা, গল্প খাওয়া ইত্যাদি তো ছিলই। সেই সঙ্গে ক্রিকেট নিয়ে আলোচনা, একসঙ্গে ওয়েব সিরিজ দেখা সবই করেছেন। তাঁদের সোশ্যাল মিডিয়া পোস্টই এর প্রমাণ। এমনকী এই লকডাউনে বিরাটের সঙ্গে ক্রিকেটও খেলেছেন অনুষ্কা।

ভোগের সেই সাক্ষাৎকারে বিরাট বলেন,'আমরা প্রতিদিন একে অপরকে ভালোবাসি। আমাদের সম্পর্কে সবসময় প্রেমই প্রাধান্য পায়। পাচ্ছে এবং প্রেমই আমাদের সম্পর্ককে এমন ভালোবাসায় বেঁধে রেখেছে। আর তাই আমরা অনুভব করি মোটে এই কয়েকবছর নয়। জন্ম জন্মান্তর ধরে আমরা একে অপরকে চিনি। ভালোবাসি'।

লকডাউনেই মুক্তি পেয়েছে অনুষ্কা শর্মার প্রযোজনা সংস্থা থেকে দুটি ওয়েব সিরিজ। আর তা দর্শকমহলে সুপার ডুপার হিট। সেই সিরিজের প্রশংসায় বিরাট কোহলিও। দুবছর আগে বিরাট-অনুষ্কার সেই রূপকথার বিয়ে এখনও তরতাজা সকলের মনে। অনুষ্কার বিয়ের সাজ , লেহেঙ্গা ভীষণই জনপ্রিয় এই জেনরেশনের কন্যেদের কাছে। তাঁরা সবসময় একে অপরের পাশে যেভাবে থেকেছেন, সম্পর্কের প্রতি তাঁদের শ্রদ্ধা কোথাও গিয়ে অনুপ্রাণিত করেন জেন ওয়াইকে। ভরসা দেয় ভালোবাসায়। আর তাঁদের নিজেদের গুণেই আজ তাঁরা সবার কাছে এত জনপ্রিয়। প্রফেশনাল এবং ব্যক্তিগত জীবন কীভাবে সামলে চলতে হয় তার অন্যতম উদাহরণ বিরাট-অনুষ্কা। আর তাই ছুটি মিললেই দুজনে পাড়ি দেন পছন্দের গন্তব্য পাহাড়ে। কখনও বা চলে যান ট্রেকিং করতে।  সূত্র: এইসময়

মন্তব্যসমূহ (০)


লগইন করুন


Remember me Lost your password?

Don't have account. Register

Lost Password


মন্তব্য করতে নিবন্ধন করুন