ফ্লোরিডায় বিএনপির কর্মি সমাবেশে খালেদা জিয়ার মুক্তি দাবি

যুক্তরাষ্ট্রের ফ্লোরিডা অঙ্গরাজ্য বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল (বিএনপি)’র নতুন আহবায়ক কমিটির প্রথম কর্মি সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়েছে। স্থানীয় সময় গত শনিবার (১১ জানুয়ারি) ফ্লোরিডার পেমব্রোক পাইন্সের মুঘল রেস্তোঁরায় অনুষ্ঠিত উক্ত কর্মি সমাবেশে পার্শ্ববর্তী বেশ কয়েকটি শহর থেকে দেড় শতাধিক নেতাকর্মি একত্রিত হয়ে মিথ্যা ও বানোয়াট মামলায়  কারারুদ্ধ অবিসংবাদিত দেশনেত্রী খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবি জানান। একই সাথে দলের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানকেও ষড়যন্ত্রমূলক মামলা থেকে অব্যাহতি দিয়ে দেশে ফিরিয়ে নেওয়ার আহবান জানানো হয়।এ খবর দিয়েছে বার্তা সংস্থা বাংলা প্রেস।
 
ফ্লোরিডা বিএনপি আহাবায়ক এমরানুল হক চাকলাদারের সভাপতিত্বে এবং সদস্য সচিব ইলিয়াস খানের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত উক্ত সমাবেশে বক্তারা খালেদা জিয়ার নি:শর্ত মুক্তির দাবি করে সরকারের তীব্র সমালোচনা করেন এবং বিগত নির্বাচনের সমালোচনা করেন। তারা নেতাকর্মীদের একত্রিত হয়ে লড়াই করার আহ্বান জানান।

এমরানুল হক চাকলাদার বলেন, খালেদা জিয়াকে আইনি প্রক্রিয়ায় মুক্ত করা সম্ভব নয়। রাজপথে কঠোর আন্দোলনের মাধ্যমে তাঁকে মুক্ত করা ছাড়া কোনো উপায় নেই। আইনি প্রক্রিয়ায় হলে অনেক আগেই খালেদা জিয়া মুক্ত হতেন। শান্তিপূর্ণ আন্দোলনের পরিবর্তে দেশ ও বিদেশে কঠোর আন্দোলন ছাড়া তাঁকে মুক্ত করা সম্ভব না।

তিনি আরও বলেন, একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে ভোট দিতে না পারার কারণে দলের নেতা-কর্মীরা শুধু হতাশ হননি অনেক নেতা- কর্মিরা কিংকর্তব্যবিমূঢ় হয়ে পড়েছেন। এই অবস্থায় বিএনপিকে ঘুরে দাঁড়াতে হবে। দলের লাখ লাখ নেতা-কর্মী মামলা নিয়ে পালিয়ে বেড়াচ্ছেন। অনেকে বাড়িতে যেতে পারেন না, তাঁদের পাশে দাঁড়াতে হবে। নেতা-কর্মিদের সাহায্য করতে হবে।
দলের ভেতরের ভেদাভেদ ভুলে আন্দোলন-সংগ্রামের মাধ্যমে খালেদা জিয়াকে মুক্ত করতে হবে। সে জন্য দলকে সুসংগঠিত ও কর্মিদেরকে আরও ঐক্যবদ্ধ করতে হবে।

সদস্য সচিব ইলিয়াস খান বলেন, ‘বিচার ও আইনের মধ্য দিয়ে খালেদা জিয়ার মুক্তি সম্ভব না। তাহলে কি খালেদা জিয়া কারাগারে মারা যাবেন? বিএনপি ও এর অঙ্গ-সংগঠনগুলো বিলুপ্ত হয়ে যাবে? এটা আমাদের ভেবে দেখা উচিত।’ তিনি বলেন, ‘লড়াইয়ের জন্য দেশ বিদেশের সকল নেতাকর্মিদের তৈরি হতে হবে। এই লড়াইয়ের এক ও অদ্বিতীয় কাজ হবে খালেদা জিয়ার মুক্তি। আর এই লড়াইয়ের মধ্য দিয়ে দেশের গণতন্ত্র মুক্তি পাবে এবং স্বাধীনতা ফিরে আসবে।

তিনি আরও বলেন, এবারের সরকার হলো ভোট ডাকাতির সরকার। এভাবে প্রতারণা করে বেশি দিন টিকে থাকা যায় না। তিনি অভিযোগ করেন, একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের ভোটের দিন ছিল ৩০ ডিসেম্বর। কিন্তু নির্বাচন হয়েছে ২৯ তারিখ রাতে। এটি একটি অস্বাভাবিক ঘটনা। এই সরকার বাংলাদেশকে পৃথিবীর তলাবিহীন একটি দেশে পরিণত করেছে। এটার ভয়ংকর দিকটা হলো এই, এটার কারণে রাজনীতিতে একটি বিরাট শূন্যতা তৈরি হয়েছে। যাঁরা সরকারে আছেন, তাঁরা আরামে আছেন তাই বুঝতে পারছেন না।
 
বিরোধী দলবিহীন একটি রাষ্ট্র বেশি দিন টিকতে পারবে না। সে জন্য আমাদের খুব দ্রুত পুনর্বাসন ও পুনর্গঠনের কর্মসূচি সফল করতে হবে। খুব শিগগির আন্দোলন করে এই সরকারের পতন ঘটানো হবে।
মোহাম্মদ ফারুকের কোরান তেলাওয়াতের মধ্য দিয়ে দেশনেত্রী খালেদা জিয়ার সুস্বাস্থ্য কামনা করে দোয়া ও মোনাজাত করা হয়। অনুষ্ঠানে অন্যদের মধ্যে বক্তব্য দেন ফ্লোরিডা বিএনপি আহাবায়ক এমরানুল হক চাকলাদার,সদস্য সচিব ইলিয়াস খান,সাবেক সা. সম্পাদক আরিফ হোসেন আশরাফ, হাবিবুর রহমান হাবিব, শরীফ দেওয়ান, মোহাঃ মহসিন, মনির হোসেন, মোহাঃ মাসুদ, আলমগীর কবির, মোশারফ হোসেন মাসুদ পারভেজ,মোহাঃ কামরুল, মোহাঃ জালাল,মোহাঃ বাবর,আকবর ও ইয়াকুব প্রমুখ।

উল্লেখ্য, দীঘদিন ধরে ফ্লোরিডা অঙ্গরাজ্যে বিএনপি’র নেতৃত্বর সংকট চলে আসছিলো। নেতৃত্বের এ দ্বন্দ্ব মেটাতে দলের সিনিয়র ভাইস প্রেসিডেন্ট তারেক রহমানের নির্দেশে সহ-আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক আনোয়ার হোসেন খোকন গতবছর জুলাই মাসে ফ্লোরিডায় গিয়ে দলীয় সম্মেলনের জন্য তিন গ্রুপে বিভক্ত নেতাকর্মিদের ডাক দেন। গতবছর ২১ জুলাই সকল গ্রুপের নেতাকর্মিদের নিয়ে তিনি বৈঠক করেন। বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন এমরানুল হক চাকলাদার, আরিফ হোসেন আশরাফ, দিনাজ খান, ফারুক সরকার, ব্যারিষ্টার মনির হোসেন কাজল ও ইলিয়াস খান প্রমুখ।সকলের পরামর্শে একটি শক্তিশালী কমিটি গঠনের সিদ্ধান্ত নেন আনোয়ার হোসেন খোকন।
 
লন্ডনে ফিরে দলের সিনিয়র ভাইস প্রেসিডেন্ট তারেক রহমানের সঙ্গে কথা বলে কমিটির চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত দেবেন বলে তিনি সকলকে অবহিত করেন।একই সঙ্গে তিনি জানান সিদ্ধান্ত না আসা পর্যন্ত সকলকে ঐক্যবদ্ধভাবে দলের সকল কার্যক্রম চালিয়ে যাবার নির্দেশ দেন তিনি। তার দেওয়া সেই প্রতিশ্রুতি মোতাবেক ৩০ ডিসেম্বর বিএনপির কেন্দ্রিয় কমিটির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর কর্তৃক স্বাক্ষরিত এক পত্রে ফ্লোরিডা অঙ্গরাজ্যে বিএনপি’র চূড়ান্ত কমিটি গঠনের লক্ষ্যে আহবায়ক কমিটির অনুমোদন দেন। এতে এমরানুল হক চাকলাদার আহবায়ক ও ইলিয়াস খানকে সদস্য সচিব নির্বাচিত করা হয়। আরও ৯৭ জন নেতাকর্মি এ আহবায়ক কমিটিতে রয়েছেন বলে জানা গেছে।

মন্তব্যসমূহ (০)


লগইন করুন


Remember me Lost your password?

Don't have account. Register

Lost Password


মন্তব্য করতে নিবন্ধন করুন