আন্তর্জাতিক

ধর্ষণের মামলায় রোনালদোর ডিএনএ পরীক্ষার নির্দেশ

জুভেন্টাসে সময়টা দারুণ কাটছে ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদোর। গোল করার পাশাপাশি গোল করিয়ে দলের জয়ে অবদান রাখছেন নিয়মিত। ১৯ ম্যাচে ১৭ জয়ে দলও রয়েছে সিরি আ লিগ টেবিলের শীর্ষে।তবে ব্যক্তিগত জীবনে ওলট-পালট হয়ে যাচ্ছে সব। ২০০৯ সালের আমেরিকার লাস ভেগাসে এক তরুণীর ধর্ষণের মামলায় জর্জরিত হচ্ছেন প্রতিনিয়ত। ক্যাথরিন মায়োরগ্রা নামের এক মার্কিন মডেলকে ধর্ষণের এই অভিযোগ আবার মাথা চাড়া দিয়ে ওঠে নতুন বছরের শুরুতে।রোনালদোর সাবেক প্রেমিক জেসমিন লিনার্ড কিছুদিন আগে টুইট বার্তায় রোনালদোকে ধর্ষক ও মানুষিক রোগী বলে আখ্যায়িত করেন। এছাড়া তাকে খুনের হুমকি দিয়েছিলেন বলে জানান যুক্তরাজ্যের এই মডেল।এছাড়া ক্যাথরিন মায়োরগ্রাকে চুপ থাকার জন্য ৩ লাখ ৭৫ হাজার ডলার ঘুষ দিয়েছিলেন বলে অভিযোগ ওঠে। এবার আর অভিযোগেই সীমাবদ্ধ নেই ঘটনাটি। পুলিশের মামলায় জড়িয়ে গেছেন পর্তুগিজ এই ফুটবলার। লাস ভেগাস পুলিশ কর্তৃপক্ষ মায়োরগ্রার পোশাকে ডিএনয়ের নমুনা পেয়েছে বলে জানায় যুক্তরাষ্ট্রের সংবাদমাধ্যম ‘ওয়াল স্ট্রিট জার্নাল’।
এই নমুনার ভিত্তিতে রোনালদোর ডিএনএ পরীক্ষা করার পরোয়ানা জারি করে পুলিশ। এই পরোয়ানা নোটিশ ইতালির পুলিশ কর্তৃপক্ষকে পাঠিয়েছে লাস ভেগাস পুলিশ।তবে এই অভিযোগ বরাবরই অস্বীকার করেছেন সিআর সেভেন ও তার আইনজীবী। রোনালদো বলেন, ‘আমি দৃঢ়ভাবে এই অভিযোগ প্রত্যাখ্যান করছি। ধর্ষণ একটি ঘৃণিত অপরাধ। আমি অস্বীকার করছি এ ধরণের অপরাধের সঙ্গে আমি জড়িত নই।’এছাড়া রোনালদোর আইনজীবীর মতে লাস ভেগাসে যা হয়েছিল দু’জনের সমঝোতার ভিত্তিতে।আগামীকাল রোববার কোপা ইতালির ম্যাচের মধ্য দিয়ে নতুন বছরে প্রথমবারের মতো মাঠে নামছে জুভেন্টাস। বছরের শুরুতেই এই ঘটনা খেলায় প্রভাব পরে কিনা তাই দেখার অপেক্ষায় সমর্থকরা।

প্রিয় পাঠক আমাদের পেজে লাইক দিয়ে আমাদের সাথে থাকুন
প্রিয় পাঠক আপনার মতামত জানান

এ বিভাগের আরো খবর

Close