মাদ্রাসাছাত্রের রহস্যজনক মৃত্যু এবং তার মা পলাতক

নাজমুস সাকিব নাবিল (২০) নামে এক মাদ্রাসাছাত্রের মৃত্যু হয়েছে। সোমবার ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন নাবিল মারা যান। নারায়ণগঞ্জের সিদ্ধিরগঞ্জের পাইনাদী এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। আর এই ঘটনার পর থেকে নাজমুস সাকিব নাবিলের মা নাসরীন আক্তার পলাতক রয়েছেন।

এলাকাবাসী ও পুলিশের ধারণা, তার মা নাসরীন আক্তার তাকে হত্যা করে পালিয়েছেন। রোববার ৩০ মে রাত ৯টায় আহত অবস্থায় তাকে সিদ্ধিরগঞ্জের প্রো-অ্যাকটিভ হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। পরে তার অবস্থার অবনতি ঘটলে তাকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। নাজমুস সাকিব নাবিল ঢাকার ডেমরার দারুন্নাজাত কামিল মাদ্রাসার আলিম পরীক্ষার্থী ছিলেন।

পুলিশ সূত্রে জানা যায়, নাজমুস সাকিব নাবিলের বাবা রাতে বাসায় ফিরে ঘর তালাবদ্ধ দেখতে পান। পরে ডুপ্লিকেট চাবি দিয়ে তালা খুলে ঘরে প্রবেশ করে সন্তানকে আহতাবস্থায় দেখতে পান। নিহতের পিতা সগীর আহমেদ বলেন, আমার স্ত্রীর মানসিক সমস্যা ছিল। প্রায়ই সে রাগারাগি করে বাসার জিনিসপত্র ভাঙচুর করত। এ ঘটনা কীভাবে ঘটল আমি নিশ্চিত না। তবে আমার স্ত্রীকে সন্দেহ হচ্ছে।

সিদ্ধিরগঞ্জ থানার ওসি মশিউর রহমান এ বিষয়ে জানান, পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে। নিহতের মাথায় আঘাতের চিহ্ন আছে। বিষয়টি খতিয়ে দেখা হচ্ছে। লাশ ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের মর্গে রয়েছে বলেও জানান তিনি।

মন্তব্যসমূহ (০)


Lost Password