স্টাম্পে লাথি মেরে ফের আলোচনার মুখে সাকিব

বর্তমানে বাংলাদেশ ক্রিকেটে কোন প্রকার আলোচণা –সমালোচনা মানেই যেন সাকিব আল হাসান।ঢাকা প্রিমিয়ার লিগে (ডিপিএল) ম্যাচ চলাকালীন সময় লাথি দিয়ে স্ট্যাম্প ভেঙে আবারও আলোচনার মুখে সাকিব আল হাসান।

আবহানী মোহামেডান মানে উত্তেজনা আর এই উত্তেজনা নিয়ে শুক্রবার (১১ জুন) আবাহনী লিমিটেডের বিপক্ষে মাঠে নেমেছে মোহামেডান স্পোর্টিং ক্লাব লিমিটেড।

আড়ও পড়ুনঃ নিজের অনাঙ্কিত ভূলের ক্ষমা চাইলেন সাকিব

৪০তম ম্যাচে টস জেতার পর চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী আবাহনীর সামনে ১৪৬ রানের লক্ষ্য দেয় মোহামেডান। জবাবে ব্যাট করতে নেমে তৃতীয় ওভারে মাত্র ৯ রান তুলতেই তিন উইকেট হারিয়ে বিপাকে পড়তে হয় আবাহনীকে। নাজমুল হোসেন শান্তকে নিয়ে দলের হাল ধরার চেষ্টা করেন অধিনায়ক মুশফিকুর রহিম। ম্যাচের পঞ্চম ওভারের বল করছিলেন মোহামেডান দলনেতা সাকিব। শেষ বলে মুশফিক ছিলেন স্ট্রাইকে। এলবিডব্লিউর আবেদন করছিলেন সাকিব। তবে দায়িত্বে থাকা আম্পায়ার ইমরান পারভেজ কোনও সাড়া দেননি। এতে ক্ষোভ প্রকাশ করে স্ট্যাম্পে লাথি দিতে দেখা যায় সাকিবকে। তার পরই আম্পায়ারের সঙ্গে কথা বলতে দেখা যায় তাকে। ষষ্ঠ ওভারের পঞ্চম বল পর্যন্ত আবাহনীর সংগ্রহ ছিল ৩ উইকেটে ৩১ রান। এমন সময় শুরু হয় বৃষ্টি।

নিউজটি প্রকাশ করা পর্যন্ত খেলা বন্ধ রয়েছে। ১৭ বলে ১৩ রান করে ক্রিজে আছেন শান্ত। ৮ বলে ১২ রান করছেন মুশফিক। গেল সপ্তাহে অনুশীলনের সময় জৈব সুরক্ষা বলয় (বায়ো-বাবল) ভাঙার অভিযোগ ছিল মোহামেডানের বিরুদ্ধে। দলীয় অনুশীলন না থাকলেও গেল ৪ জুন মোহামেডান অধিনায়ক সাকিব এককভাবে অনুশীলনে অংশ নেন। বিসিবি’র একাডেমি মাঠে সাকিবকে নিজ মালিকানাধীন মাস্কো ক্রিকেট একাডেমির দুই বোলার। যারা বিসিবির বায়ো-বাবলের বাইরের।

অন্যদিকে সাদা শার্ট পরা এক ব্যক্তিকেও দেখা যায় অনুশীলনে, যিনি ক্রিকেটারদের সংস্পর্শে যাচ্ছিলেন। বিষয়টি নিয়ে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি) ও ক্রিকেট কমিটি অব ঢাকা মেট্রোপলিস (সিসিডিএম) ভার্চ্যুয়ালি এক শুনানির আয়োজন করে। সতর্ক করে ছেড়ে দেয়া হয় মোহামেডানকে। তাই শাস্তির মুখোমুখি হতে হয়নি ঐতিহ্যবাহী ক্লাবটিকে।

মন্তব্যসমূহ (০)


Lost Password