রনি-বিজয়ের ফিফটিতে রুপগঞ্জকে ১০১ রানে হারাল প্রাইম ব্যাংক

লিগের শুরুতে রান করতে পারছিলেন না প্রাইম ব্যাংকের অধিনায়ক আনামুল হক বিজয়। ব্যাট করতে নেমে প্রথম চার ম্যাচে ধারাবাহিকভাবে ব্যার্থতার পরিচয় দিয়েছেন প্রাইম ব্যাংকের অধিনায়ক। তাকে নিয়ে খুব সমালোচনা হচ্ছিল। তবে গত তিন ম্যাচ ধরেই ছন্দে ফেরার আভাস দিচ্ছিলেন তিনি। আজ প্রায় দেড় বছর এবং ২১ ইনিংস পর ফিফটি তুলে নিয়ে সেই সমালোচনার জবাব যেন ব্যাট দিয়ে দেয়ার চেষ্টা করলেন বিজয়।

বিজয় ৪৯ বলে ৩ চার ও ৬ ছক্কায় করেন অপরাজিত ৬৯ রান। তার ইনিংসে ছিল ৬টি ছয়ের মার। তাকে যোগ্য সঙ্গ দিয়েছেন রনি তালুকদার। ৩১ বলে ৫ চার ও ৩ ছক্কায় ৫৩ রান তোলেন রনি তালুকদার। রনি ও বিজয়ের চমৎকার ব্যাটিংয়ের সুবাদে ৫ উইকেটে ১৬৯ রান সংগ্রহ করে প্রাইম ব্যাংক। রনি-বিজয়ের দিনে ম্লান ছিলেন জাতীয় দলের ওয়ানডে অধিনায়ক তামিম ইকবাল। তিনি ২০ বল খেলে করেছেন ১২ রান। এছাড়া এই মৌসুমে প্রাইম ব্যাংকের হয়ে ধারবাহিক পারফর্ম করা মিথুন করেছেন ১৮ রান। রুপগঞ্জের মুক্তার আলী ২৮ রানে ৩ উইকেট শিকার করেন।

জবাব দিতে কখনই মনে হয়নি রুপগঞ্জ ম্যাচটি জিততে পারে। একেবারে শুরু থেকেই প্রাইম ব্যাংকের বোলাররা চেপে ধরে রুপগঞ্জের ব্যাটসম্যানদের। রুপগঞ্জের এগার ব্যাটসম্যানের সাতজন দুই অঙ্কের ঘরে পৌছাতে পারেনি। সবচেয়ে বড় কথা গত ম্যাচে মোহামেডানকে চমকে দেয়া রুপগঞ্জ আনামুল হক বিজয়ের সমান রান করতে পারেনি। দুই ওভার বাকি থাকতে মাত্র ৬৮ রানেই অলআউট হয়ে গেছে। রুপগঞ্জের হয়ে উইকেট রক্ষক জাকের আলী সর্ব্বোচ্চ ১৬ রান করেন। প্রাইম ব্যাংকের নাহিদুল ইসলাম ১৫ রানে ৩ উইকেট শিকার করেন। এছাড়া রুবেল হোসেন ও নাঈম হাসান ২টি উইকেট শিকার করেন। ১০১ রানের বিশাল জয়ের ফলে ৭ ম্যাচে ৬টি জয় তুলে নিয়ে পয়েন্ট টেবিলের শীর্ষে অবস্থান করছে তামিম-বিজয়ের প্রাইম ব্যাংক।

মন্তব্যসমূহ (০)


Lost Password