ভয়ংকর এলএসডিসহ গ্রেফতার ৫ মাদক ব্যবসায়ী

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থী হাফিজুরের মৃত্যুর রহস্যের জাল খুলতে গিয়ে সন্ধান মেলে এলএসডির। এ ঘটনায় জড়িত বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের তিন শিক্ষার্থীকে গ্রেপ্তারের পর তাদের দেয়া তথ্যে এবার গ্রেপ্তার হলো আরও পাঁচজন। গ্রেপ্তারকৃতদের কাছ থেকে উদ্ধার করা হয় বিপুল পরিমাণ এলএসডি এবং আইস।

রোববার (৩০ মে) রাতে এক ব্রিফিংয়ে এ তথ্য জানায় ডিএমপির মতিঝিল বিভাগ।

সদ্য গ্রেফতারকৃত পাঁচ আসামীরা হলো- সাইফুল ইসলাম সাইফ, এসএম মনওয়ার আজিক আনান, মোঃ নাজমুস সাকিব, নাজমুল সাকিব ও বিএম সিরাজুল ইসলাম সালেকীন ওরফে তপু। গ্রেফতারকৃত পাঁচ আসামীই ধর্নাঢ্য পরিবারের সন্তান।

পুলিশ জানায়, গ্রেফতারকৃত পাঁচ আসামীর মধ্যে তিন জনকে মালিবাগ কমিউনিটি সেন্টার এলাকা থেকে তিন জন এবং বাকি দুই জনকে বাটারা এলাকা থেকে আটক করা হয়েছে। তাদের কাছ থেকে দুই হাজার মাইক্র গ্রাম এলএসডি গাজা এবং আইস মাদক জব্দ করা হয়।      

পুলিশ বলছে, এলএসডি এতটাই ভয়ানক এক মাদক যে, এর পরিমাপ করা হয় মাইক্রোগ্রামে। এই মাদক সেবনের ফলে যে কেউ বোধশক্তি হারিয়ে ভয়ানক কিছু করে বসতে পারে।

ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশের অতিরিক্ত কমিশনার এ কে এম হাফিজ আক্তার বলেন, মাদকটি মূলত ছোট একটা বিষয়। এটি ঠোঁটের নিচে দিয়ে সেবন করে। যারা ব্যবহার করে, তাদের কাছেই রাখা হয়। তারা এগুলো বহন করে বিভিন্ন জায়গায় সরবরাহ করে। 

এ কে এম হাফিজ আক্তার আরও বলেন, যারা এগুলোর সঙ্গে জড়িয়ে পড়বে, তাদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়া হবে। সে যেই হোওক না কেন তাকে চুল পরিমান ছাড় দেওয়া হবেনা।

পুলিশ আরও বলছে, প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে আসামিরা জানায় গত এক বছর ধরে দেশে এলএসডির ব্যবসা চালিয়ে আসছে আরও ১৩-১৪টি চক্র। এদিকে এই ঘটনায় আগে গ্রেপ্তার তিন শিক্ষার্থীকে পাঁচদিন করে রিমান্ডে নিয়েছে পুলিশ।

মন্তব্যসমূহ (০)


Lost Password