হোয়াটসঅ্যাপে চ্যাটিংয়ে বাধা দেয়ায় ঘুষি মেরে স্বামীর দাঁত ভাঙল স্ত্রী

হোয়াটসঅ্যাপে চ্যাটিংয়ে বাধা দেয়ায় ঘুষি মেরে স্বামীর দাঁত ভাঙল স্ত্রী

হোয়াটসঅ্যাপ চ্যাটিংয়ে বাধা দেয়ায় ঘুষি মেরে স্বামীর দাঁত ভেঙে দিলেন স্ত্রী। এমন অভিযোগে শিমলার থানায় একটি অভিযোগ দায়ের হয়েছে। স্ত্রীর উপযুক্ত শাস্তির দাবি জানিয়েছেন নির্যাতিত স্বামী।

বৃহস্পতিবার ভারতের শিমলায় এ ঘটনা ঘটে। ভুক্তভোগী ওই ব্যক্তি পুলিশকে জানিয়েছেন, তার স্ত্রী মোবাইলে আসক্ত। ক্রমাগত হোয়াটসঅ্যাপে চ্যাট করতে থাকেন তিনি। বৃহস্পতিবার স্ত্রী যখন হোয়াটসঅ্যাপে মগ্ন ছিলেন, তখন তিনি বাধা দিতে যান। এতেই স্ত্রী ক্ষিপ্ত হয়ে ওঠেন। আর এক ঘুষিতেই দাঁত ভেঙে দেন স্বামীর। এরপরও রেহাই মেলেনি বলে অভিযোগ।

জানা যায়, স্বামীকে লাঠি দিয়ে বেদম প্রহারও করেছেন শিমলার ওই নারী। তারপর তাকে হাসপাতালেও নিয়ে যেতে হয়েছিল। চিকিৎসকের কাছ থেকে প্রেসক্রিপশন নিয়ে সোজা থানায় হাজির হন ভুক্তভোগী স্বামী। স্ত্রীর বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করেন তিনি। স্বামীর অভিযোগের ভিত্তিতে মামলা নথিভূক্ত করে থিয়োগ থানার পুলিশ।

শিমলার পুলিশ সুপার মণিকা জানান, স্বামীর অভিযোগের ভিত্তিতে তদন্ত শুরু করেছে পুলিশ। কেন ওই নারী এমন কাজ করলেন তা খতিয়ে দেখা হবে। স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, প্রাথমিক তদন্তের পর বেশ কিছু প্রশ্ন উঠছে। যেমন, কেন স্ত্রীকে হোয়াটসঅ্যাপ চ্যাটে বাধা দিয়েছিলেন ওই ব্যক্তি? কার সাথে মন দিয়ে চ্যাট করছিলেন ওই নারী। ঘটনায় বিবাহ বহির্ভূত সম্পর্কের সম্ভাবনাও উড়িয়ে দেয়া যাচ্ছে না। সমস্ত দিক খতিয়ে দেখে তারপর পরবর্তী পদক্ষেপ নেবে পুলিশ।

তবে পুলিশ জানিয়েছে, ওই নারীকে খুব শিগগিরিই জিজ্ঞাসাবাদ করা হবে। অভিযোগকারী স্বামীকেও জিজ্ঞাসাবাদ করা হবে। এর পাশাপাশি প্রতিবেশীদের সাথেও কথা বলবে পুলিশ। দেখা হবে ওই নারী ও তার স্বামীর সম্পর্ক কেমন ছিল তাও।

মন্তব্যসমূহ (০)


Lost Password