২৫ বাস কোম্পানির রুট পারমিট বাতিলের সুপারিশ

২৫ বাস কোম্পানির রুট পারমিট বাতিলের সুপারিশ

বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় বিআরটিএ থেকে পাঠানো এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে যে, বাসে অতিরিক্ত ভাড়া আদায়ের বিরুদ্ধে গত এক মাসে ঢাকা ও চট্টগ্রাম মহানগরের বাসে অভিযান চালিয়েছে বাংলাদেশ সড়ক পরিবহণ কর্তৃপক্ষের (বিআরটিএ) ভ্রাম্যমাণ আদালত।

অতিরিক্ত ভাড়া আদায়ের একই অপরাধ বারবার করায় ২৫টি বাস কোম্পানির রুট পারমিট বাতিলসহ আইনগত ব্যবস্থা নেওয়ার সুপারিশ করা হয়েছে। বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, অভিযানে গত এক মাসে ঢাকা মহানগরে এক হাজার ৪০৮টি বাসকে ৫৭ লাখ টাকা জরিমানা করা হয়েছে।

এর মধ্যে ৮০টি বাস সিএনজিচালিত ও এক হাজার ৩২৮টি বাস ডিজেলচালিত। গত ৮ অক্টোবর থেকে ৯ ডিসেম্বর পর্যন্ত এ অভিযান চলে। বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, বিআরটিএ’র এক্সিকিউটিভ ম্যাজিস্ট্রেটদের প্রতিবেদনের ভিত্তিতে অতিরিক্ত ভাড়া আদায়ের একই অপরাধ পুনরাবৃত্তিকারী ২৫টি বাস কোম্পানির বাসের তালিকা করা হয়েছে।

তালিকাতে গাড়ির নম্বর, অপরাধ সংঘটনের তারিখ ও জরিমানার তথ্য উল্লেখ করে রুট পারমিট বাতিলসহ আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য সুপারিশ করা হয়েছে। প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে ঢাকা মেট্রো আরটিসি কর্তৃপক্ষের কাছে তালিকা ইতোমধ্যে পাঠানো হয়েছে।

তালিকায় সবচেয়ে বেশি অপরাধকারী বাস কোম্পানির মধ্যে রয়েছে- বসুমতি, রাইদা, পরীস্থান, এমএম লাভলী, অনাবিল, আলিফ, লাব্বাইক, তুরাগ, বলাকা ও স্বাধীন, প্রজাপতি, রজনীগন্ধা, শিকড়, আকাশ, আজমেরী, মনজিল, প্রভাতি, বনশ্রী, আসমানী, প্রচেষ্টা, ভিক্টর, মিডলাইন, ডি-লিংক, রাজধানী, গুলিস্তান-গাজীপুর পরিবহণ ও ভিআইপি পরিবহণ কোম্পানি।

বিজ্ঞপ্তিতে আরও বলা হয়, অভিযানে সরকার নির্ধারিত ভাড়ার চেয়ে অতিরিক্ত ভাড়া আদায়, রুট পারমিট না থাকাসহ নানা অপরাধে ৫৬টি বাসকে ডাম্পিংয়ে পাঠানো হয়েছে। ৫ জন বাস চালককে বেপরোয়া গাড়ি চালানো ও সরকারি দায়িত্ব পালনে বাধা দেওয়ায় কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছে।

মন্তব্যসমূহ (০)


Lost Password